জাপান-আমেরিকা মিলে উত্তর কোরিয়াকে শিক্ষা দিতে প্রস্তুত

armyমার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প উত্তর কোরিয়ার বারবার মিসাইল পরীক্ষায় ক্ষুব্ধ হয়ে চীনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তাছাড়া উত্তর কোরিয়াকে একটা যোগ্য জবাব দিতে এবার আমেরিকার পাশে রয়েছে জাপান। উত্তর কোরিয়া যে ক্রমশই এক দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে- এই বিষয়ে একমত জাপান-আমেরিকা।

সম্প্রতি উত্তর কোরিয়া নতুন প্রযুক্তির ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করে যুক্তরাষ্ট্রকে হুঙ্কার দিয়ে দাবি করেছিলেন, একটা বোতাম টিপলেই নিউইয়র্ক, ওয়াশিংটন কিংবা আমেরিকার মূল ভূখণ্ডের যে কোন ‘টার্গেট’ ধুলোয় মিশিয়ে দিতে পারে উত্তর কোরিয়া। এছাড়া দাবি করা হয়েছিল, এর আগে চলতি মাসের গোড়ায় উত্তর কোরিয়া যে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছিল, এটি তার চেয়েও বেশি শক্তিশালী এবং আরো দূরপাল্লার।

এ ব্যাপারে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ট্রাম্প, উত্তর কোরিয়ার সাম্প্রতিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে কথা বলেছেন। দুই দেশেই সহমত পোষণ করে জানিয়েছেন, উত্তর কোরিয়া, আমেরিকা-জাপান-দক্ষিণ কোরিয়াসহ বেশ কিছুদেশের জন্য দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছে। উত্তর কোরিয়ার ওপর রাজনৈতিক এবং আর্থনৈতিক চাপ সৃষ্টি করতে, অন্যান্য দেশকেও এগিয়ে আসার আবেদন করেছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে প্রকাশ্যে কিমের হুমকিকে পেন্টাগন পাত্তা না দিলেও পিয়ং ইয়ংয়ের দাবিকে ফাঁকা আওয়াজ বলে উড়িয়ে দিতে নারাজ ছিল সিউল এবং টোকিও। দুই মিত্র দেশকে আশ্বস্ত করতে এবং কিমের হুঙ্কারের জবাব দিতে ওই দিন উত্তর কোরিয়ার উপর দিয়ে দু’টো যুদ্ধবিমান উড়িয়ে দিল যুক্তরাষ্ট্র।