cosmetics-ad

শক্তিশালী পাসপোর্টের তালিকায় শীর্ষে সিঙ্গাপুর, বাংলাদেশ ৯০তম

passport

বিশ্বের শক্তিশালী পাসপোর্ট তালিকায় চলতি বছর বাংলাদেশের অবস্থান ৯০তম। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইয়েমেনের সঙ্গে তালিকায় যুগ্মভাবে রয়েছে বাংলাদেশের পাসপোর্ট। বৈশ্বিক আর্থিক পরামর্শ প্রতিষ্ঠান আরটন ক্যাপিটাল এই তালিকা তৈরি করেছে।

‘গ্লোবাল পাসপোর্ট পাওয়ার র‌্যাংক ২০১৭’ শীর্ষক তালিকায় প্রথমবারের মতো সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্টের স্থানটি দখল করেছে সিঙ্গাপুর। এই প্রথম আরটন ক্যাপিটালের তালিকার শীর্ষে এশিয়ার কোনো দেশ জায়গা করে নিতে সক্ষম হয়েছে। এই ছো্ট্ট দেশটির ভিসা মুক্ত স্কোর হচ্ছে ১৫৯। এর আগে গত দুই বছর ধরে এই তালিকায় শীর্ষ স্থানে ছিল জার্মানির পাসপোর্ট। এ বছর জার্মানির অবস্থান দ্বিতীয়তে চলে এসেছে। এবার এশিয়ার তিনটি দেশ দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও মালয়েশিয়া শক্তিশালী ১০ এর মধ্যে জায়গা করে নিতে সক্ষম হয়েছে। এ তালিকায় যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান ছয়ে।

এই তালিকায় ৯০ তম অবস্থানে থাকা বাংলাদেশের ভিসা মুক্ত স্কোর ৩৫। প্রতিবেশী ভারত ৫১ স্কোর নিয়ে ৭৫তম অবস্থানে রয়েছে। গত বছর এই তালিকায় ভারত ছিল ৭৮ নম্বরে। অপরদিকে ভারতের চিরবৈরী পাকিস্তান রয়েছে ৯৩তম অবস্থানে।

সংশ্লিষ্ট দেশের পাসপোর্টধারী কতটি দেশে ভিসামুক্তভাবে কিংবা অন অ্যারাইভাল ভিসায় ভ্রমণ করতে পারবে সেই সংখ্যাকে নির্দিষ্ট করা হয়েছে ভিসামুক্ত স্কোরের মাধ্যমে।

আরটন ক্যাপিটালের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি আরমন্ড আরটন বলেছেন, ‘আজকের দুনিয়ায় ভিসামুক্তভাবে বৈশ্বিক চলাচল গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতি বছর পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা ও সেরা সুযোগের জন্য দ্বিতীয় পাসপোর্টের জন্য লাখ লাখ ডলার ব্যয় করছে।’

র‍্যাংকিং অনুযায়ী শীর্ষ ১০ পাসপোর্ট (বন্ধনীতে স্কোর):

১. সিঙ্গাপুর (১৫৯)

২. জার্মানি (১৫৮)

৩. সুইডেন, দক্ষিণ কোরিয়া (১৫৭)

৪. ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, ইতালি, ফ্রান্স, স্পেন, নরওয়ে, জাপান, যুক্তরাজ্য (১৫৬)

৫. লুক্সেমবার্গ, সুইজারল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস বেলজিয়াম, অস্ট্রিয়া, পর্তুগাল (১৫৫)

৬. মালয়েশিয়া, আয়ারল্যান্ড, কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র (১৫৪)

৭. গ্রিস, নিউজিল্যান্ড (১৫৩)

৮. মালটা, চেক রিপাবলিক, আইসল্যান্ড (১৫২)

৯. হাঙ্গেরি (১৫০)

১০. স্লোভেনিয়া, স্লোভাকিয়া, পোল্যান্ড, লিথুয়ানিয়া, লাটভিয়া (১৪৯)