Search
Close this search box.
Search
Close this search box.

দেশে কর্মরত বিদেশিদের সংখা সাড়ে ৮৫ হাজার, শীর্ষে ভারত, দ. কোরিয়া চতুর্থ

songsodবাংলাদেশে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত মোট বিদেশি নাগরিক রয়েছেন ৮৫ হাজার ৪৮৬ জন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি রয়েছেন ভারতের নাগরিক। দেশটির ৩৫ হাজার ৩৮৬জন নাগরিক বাংলাদেশে কর্মরত রয়েছেন। এ ক্ষেত্রে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে চীন। দেশটির ১৩ হাজার ২৬৮ জন লোক বাংলাদেশে কাজ করছেন। জাপান রয়েছে তৃতীয় স্থানে। বাংলাদেশে কাজ করছেন ৪ হাজার ৯২ জন জাপানি।

chardike-ad

রোববার জাতীয় সংসদে কুড়িগ্রাম-৩ আসনের এমপি এ কে এম মাইদুল ইসলামের তারকাচিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে স্পেশাল ব্রাঞ্চ, বাংলাদেশ পুলিশ হতে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এই তথ্য জানান।

মন্ত্রীর দেয়া তথ্য অনুযায়ী, চতুর্থ স্থানে থাকা দক্ষিণ কোরিয়ার তিন হাজার ৩৯৫ জন, পঞ্চম স্থানে থাকা মালেয়েশিয়ার তিন হাজার ৮০ জন বাংলাদেশে কাজ করছেন।

মন্ত্রী বলেন- এসব নাগরিক বিশেষজ্ঞ, কান্ট্রি ম্যানেজার, কনসালট্যান্ট, কোয়ালিটি কন্ট্রোলার, মার্চেন্ডাইজার, টেকনেশিয়ান, সুপারভাইজার, চিকিৎসক, নার্স, ম্যানেজার, প্রকৌশলী, প্রডাকশন ম্যানেজার, ডিরেক্টর, কুক, ফ্যাশন ডিজাইনার, শিক্ষক ইত্যাদি পেশায় কাজ করেন।

এছাড়া শ্রীলঙ্কার ৩ হাজার ৭৭ জন, থাইল্যান্ডের দুই হাজার ২৮৪ জন, যুক্তরাজ্যের এক হাজার ৮০৪ জন, যুক্তরাষ্ট্রের এক হাজার ৪৪৮ জন, জার্মানির এক হাজার ৪৪৭ জন, সিঙ্গপুরের এক হাজার ৩২০ জন, তুরস্কের এক হাজার ১৩৪ জন, ফ্র্যান্সের ৯০৭ জন, ইন্দোনেশিয়ার ৮৫৯ জন, ফিলিপাইনের ৮৫৯ জন, রাশিয়ার ৮৪৫ জন, নেদারন্যান্ডসের ৮১৮ জন, ইতালির ৭৯৫ জন, পাকিস্তানের ৭১৩ জন, ভিয়েতনামের ৬৫৪ জন, অস্ট্রেলিয়ার ৫৬৩ জন, স্পেনের ৫৩২ জন, কানাডার ৪০৪ জন, মিশরের ৩৬৯ জন, দক্ষিণ আফ্রিকার ৩১৮ জন, সুইডেনের ২৫১ জন, ডেনমার্কের ২৩৭ জন, বেলজিয়ামের ২৩৫ জন, নাইজেরিয়ার ২২৮ জন, মরিশাসের ২২৪ জন, সৌদি আরবের ২২৩ জন, নেপালের ১৮৫ জন, সুইজারল্যান্ডের ১৮৪ জন, তাইওয়ানের ১৮২ জন, ইরানের ১৫৪ জন, বেলারুশের ১৪৪ জন, পোল্যান্ডের ১৩৮ জন, ব্রাজিলের ১৩৭ জন, অস্ট্রিয়ার ১২৯ জন, ইউক্রেনের ১২৮ জন, মালদ্বীপের ১২৬ জন, জর্ডানের ১০৯ জন, উজবেকিস্তানের ১০৩ জন লোক বাংলাদেশে কাজ করছেন। এছাড়া বাংলাদেশে কাজ করা অন্যান্য দেশের এক হাজার ৯৯৭ জন নাগরিক রয়েছে।

বিদেশিদের কাজের শ্রেণি/ ভিসার ধরণ অনুযাযী ক্যাটাগরি ভিত্তিক তথ্য তুলে ধরেন মন্ত্রী। তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী, ব্যবসায় মালিক হিসেবে ৬৭ হাজার ৮৫৩ জন ভিসা নিয়েছেন, এক্সপার্ট হিসেবে ভিসা নিয়েছেন আট হাজার ৩০০ জন। অফিসার হিসেবে ভিসা নিয়েছেন তিন হাজার ৬৮২ জন, খেলোয়াড়/ সংগঠক হিসেবে আছেন দুই হাজার ১০৫জন, ক্যাপিটাল ইনভেস্টর হিসেবে ৯২২ জন, পারসোনাল স্টাফ হিসেবে ৮০৪ জন, ইক্যুইপমেন্ট টেকনিক্যাল পারসোনাল হিসেবে ৭২৭, এনজিও পারসোনাল হিসেবে ৫৬১, রিসার্চ/ ট্রেনিং হিসেবে ৪০০জন ও হলিডে ওয়ার্কার হিসেবে ১৩২ জন ভিসা নিয়েছেন।