cosmetics-ad

উত্তর কোরীয় জেনারেলের সফর ঘিরে উত্তপ্ত দক্ষিণ কোরিয়া

উত্তর কোরিয়ার এক উচ্চপদস্থ জেনারেলের সফর ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে দক্ষিণ কোরিয়া। পিয়ংচ্যাং অলিম্পিক উপলক্ষে সফর করা সেই জেনারেল ২০১০ সালে একটি যুদ্ধজাহাজ ডুবিয়ে দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ আছে। সেই অভিযোগে তার ফাঁসির দাবিতে শুক্রবার বিক্ষোভ করেন দক্ষিণ কোরিয়ার আইনপ্রণেতারা।

কিম ইয়ং চল নামের ওই জেনারেলের আগামীকাল রোববার আট সদস্যবিশিষ্ট একটি প্রতিনিধি দলের নেতা হিসেবে অলিম্পিকের সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দক্ষিণ কোরিয়া পৌঁছানোর কথা আছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতি বেশ কয়েকটি আক্রমণের জন্য কিম ইয়ং চলের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে, বিশেষত আট বছর আগে সিউলের চিওনান করভেট জাহাজটি টর্পেডো দিয়ে ডুবিয়ে দেয়ার জন্য তাকে দায়ী করা হয়। সেই ঘটনায় ৪৬ জনের প্রাণহানি ঘটে।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের বাসভবন ব্লু হাউজের সামনে রক্ষণশীল লিবার্টি কোরিয়া পার্টির প্রায় ৭০ জন আইনপ্রণেতা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। তারা প্রেসিডেন্ট মুন জে ইনের কাছে কিমের সফর বাতিল করার দাবি জানান।

এক বিবৃতিতে পার্টির সংসদীয় নেতা কিম সুং তায়ে বলেন, কিম ইয়ং চল একজন নারকীয় যুদ্ধাপরাধী, যে দক্ষিণকে আক্রমণ করেছিল। তাকে রাস্তার মাঝখানে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মারা উচিত।

তিনি আরো বলেন, যদি স্বর্গও দুই ভাগ হয়ে যায়, আমরা এ রকম জঘন্য আসামিকে ছাড় দিতে পারি না— তাকে কেটে দুই ভাগ করা উচিত। তাকে কোনোভাবেই অলিম্পিকের সমাপনী অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো উচিত না।

কিম ইয়ং চল উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও আন্তঃকোরীয় সম্পর্কের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত ইউনাইটেড ফ্রন্ট ডিপার্টমেন্টের প্রধান। এর আগে তিনি দেশটির গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান ছিলেন। উত্তর কোরীয় এই সামরিক গোয়েন্দা সংস্থাটিকে চিওনান করভেট জাহাজটি ডুবিয়ে দেয়ার জন্য দক্ষিণ কোরিয়া দায়ী করে।

শুক্রবার দক্ষিণ কোরিয়া জানায় শান্তি আলোচনার জন্য তারা অলিম্পিকের সময় কিম ইয়ং চলের সফর অনুমোদন করেছে। পরিস্থিতি অনুধাবনের জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

ইউনিফিকেশন মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাইক তাই-হুইন এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বর্তমানের কঠিন পরিস্থিতিতে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আমরা মনোযোগ দেব সংলাপের মাধ্যমে (সফরকারী উত্তর কোরীয় কর্মকর্তাদের সঙ্গে) কোরীয় উপদ্বীপে শান্তি এবং আন্তঃকোরীয় সম্পর্কের উন্নতি ঘটানো যায় কিনা। তারা অতীতে কী করেছে সেদিকে আমরা মনোযোগ দেব না।

দক্ষিণ কোরিয়ার একজন আইনপ্রণেতা কাং সিওক হো সাংবাদিকদের বলেন, আন্তঃকোরীয় এবং নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ে আলোচনার জন্য কিম ইয়ং চল ‘উপযুক্ত ব্যক্তি’। তিনি বলেন, কিম ইয়ং চল আন্তঃকোরীয় সম্পর্ক বিষয়ে একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন বিষয়, যেমন সামরিক উত্তেজনা হ্রাস, আন্তঃকোরীয় সম্পর্কের উন্নয়ন এবং নিরস্ত্রীকরণের জন্য আলোচনায় তাকে উপযুক্ত ব্যক্তি হিসেবে মেনে নেয়া হয়েছে।