cosmetics-ad

শি জিনপিংকে ক্ষমতায় রাখতে সংবিধান পরিবর্তন করছে চীন

xi-jinping

প্রেসিডেন্টের মেয়াদ দুই মেয়াদের বেশি হতে পারবে না বলে চীনের সংবিধানে যে অনুচ্ছেদ আছে তা বাতিলের প্রস্তাব করেছে দেশটির ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি। বর্তমান প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের মেয়াদ বাড়ানোর লক্ষ্যেই দলটি এ প্রস্তাব করেছে বলে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে দেশটিতে।

চীনে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়েছে যে, প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং তার মেয়াদ ২০২৩ সাল পর্যন্ত বাড়াতে চান। এর আগে গত বছরের অক্টোবরে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল কমিউনিস্ট পার্টি শি জিনপিংয়ের মতাদর্শকে তাদের গঠনতন্ত্রে অন্তর্ভূক্ত করার পক্ষে ভোট দেয়। এর মাধ্যমে সমাজতান্ত্রিক চীনের প্রতিষ্ঠাতা মাও সেতুংয়ের কাতারে আসেন শি জিনপিং।

চীনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক বৈঠক কমিউনিস্ট পার্টির কংগ্রেসের শেষের দিকে ‘শি জিনপিংয়ের ভাবনা’কে দলীয় সংবিধানে অন্তর্ভূক্তির পক্ষে একচেটিয়া ভোটে সকলেই সম্মতি জানায় অক্টোবরের শেষের দিকে।

২০১২ সালে নেতা হিসাবে আবির্ভূত হওয়ার পর থেকে দেশটিতে তার ক্ষমতা দৃঢ়ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। সংবিধানে শি জিনপিংয়ের ভাবনা অন্তর্ভূক্ত হওয়ায় চীনের এই প্রেসিডেন্ট যদি কোনো চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হন তাহলে তা কমিউনিস্ট পার্টির শাসনের জন্য হুমকি হিসাবে বিবেচিত হবে।

বেইজিংয়ের গ্রেট হলে কমিউনিস্ট পার্টির ওই কংগ্রেসে দুই হাজারের বেশি প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। কমিউনিস্ট পার্টির সংবিধানে ‘নতুন যুগে শি জিনিপিংয়ের চীনা সমাজতান্ত্রিক চিন্তা’ অন্তর্ভূক্তির জন্য চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয় সেই সময়।

প্রেসিডেন্টের মেয়াদ বাড়ানোর এ প্রস্তাব রোববার চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম সিনহুয়া এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, চীনের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটি সংবিধানের একটি অনুচ্ছেদ সরিয়ে দেয়ার প্রস্তাব করেছে। এটি অনুমোদন পেলে প্রেসিডেন্ট এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট দুই মেয়াদের বেশি দেশটির শাসন ক্ষমতায় থাকতে পারবেন।