cosmetics-ad

সমীক্ষায় প্রকাশ, তরুণদের কাছে আকর্ষণ হারাচ্ছে ফেসবুক

facebook-user

পিউ রিসার্চ সেন্টারের করা এক সমীক্ষায় ফেসবুকের জন্য আশঙ্কাজনক এক তথ্য উঠে এসেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রকাশিত সমীক্ষায় বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের তরুণদের ফেসবুক আর আকর্ষণ করছে না। এত দিন তরুণদের বড় একটি অংশ ফেসবুকে মেতে থাকলেও এখন তারা ইউটিউব, ইনস্টাগ্রাম, স্ন্যাপচ্যাটের মতো প্ল্যাটফর্মে ঝুঁকে পড়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, পিউয়ের সমীক্ষা অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের ১৩ থেকে ১৭ বছর বয়সী তরুণদের ৫১ শতাংশ ফেসবুক ব্যবহার করছে। সে তুলনায় ইউটিউব ব্যবহারকারীর হার ৮৫ আর ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারী ৭২ শতাংশ। ৬৯ শতাংশ ব্যবহার করছে স্ন্যাপচ্যাট।

এর আগে ২০১৪-১৫ সালে পিউয়ের সমীক্ষায় দেখা গিয়েছিল ৭১ শতাংশ তরুণ ফেসবুক ব্যবহার করছে। ওই সময় তরুণদের কাছে জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম হিসেবে ফেসবুক ছিল শীর্ষে।

পিউ রিসার্চের গবেষক মনিকা অ্যান্ডারসন বলেন, মাত্র তিন বছর আগে তরুণদের কাছে সামাজিক যোগাযোগের যে ক্ষেত্রটি অগ্রগণ্য ছিল, এখনকার পরিস্থিতি সম্পূর্ণ ভিন্ন। তরুণদের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুক বাদেও অনেক ছড়িয়ে গেছে। তারা যেকোনো একটি প্ল্যাটফর্মে আটকে নেই। এখন তারা আগের চেয়ে বেশি ডিজিটাল উপায়ে সংযুক্ত।

এবারের সমীক্ষায় দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের ৯৫ শতাংশ তরুণের স্মার্টফোন আছে এবং ৪৫ শতাংশ সব সময় অনলাইনে থাকে। ৩১ শতাংশের মত হচ্ছে, সামাজিক যোগাযোগের প্রভাব ইতিবাচক। ২৪ শতাংশ এর প্রভাব নেতিবাচক বলে মনে করছে।

প্রায় ২০০ কোটির বেশি ব্যবহারকারী নিয়ে বর্তমানে বিশ্বের বৃহত্তম সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট ফেসবুক। কিন্তু কয়েকটি সমীক্ষা ও কয়েকজন বিশেষজ্ঞ বলছেন, স্ন্যাপচ্যাট ও ফেসবুকের মালিকানাধীন ইনস্টাগ্রামের উঠে আসার কারণে তরুণেরা ফেসবুকে আগ্রহ হারাচ্ছে। এর আগে ই-মার্কেটার নামের আরেক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সমীক্ষায় একই রকম তথ্য উঠে এসেছিল।

ই-মার্কেটারের তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে ২০ লাখের বেশি ২৪ বছরের কম বয়সী ব্যবহারকারী হারাবে ফেসবুক। সে তুলনায় ফেসবুকে বয়স্ক লোক বাড়বে।
পিপার জেফরির তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের তরুণদের মধ্যে স্ন্যাপচ্যাট জনপ্রিয় মাধ্যম। ৪৭ শতাংশ তরুণ ব্যবহারকারী এটি ব্যবহারের পক্ষে।

এদিকে ইন্দো এশিয়ান নিউজ সার্ভিসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে জনপ্রিয় ওয়েবসাইটের হিসেবে ফেসবুককে টেক্কা দিয়েছে অনলাইন ফোরাম রেডিট। আমাজনের ওয়েব ট্রাফিক বিশ্লেষক প্ল্যাটফর্ম অ্যালেক্সা র‍্যাঙ্কিং অনুযায়ী, ফেসবুককে চারে ঠেলে দিয়ে র‍্যাঙ্কিংয়ের তৃতীয় অবস্থানে চলে এসেছে রেডিট।

তালিকার শীর্ষে বরাবরের মতোই আছে গুগল। এরপরে রয়েছে গুগলেরই মালিকানাধীন ইউটিউব। রেডিট ও ফেসবুকের পরে রয়েছে ই-কমার্স জায়ান্ট আমাজন।

সৌজন্যে- প্রথম আলো