cosmetics-ad

সাহারা মরুভূমিতে মৃত্যু শঙ্কায় ১৩ হাজার শরণার্থী

algeria-migrants

আলজেরিয়া থেকে বের করে দেওয়া ১৩ হাজারের বেশি মানুষ গত ১৪ মাস ধরে সাহারা মরুভূমিতে দিনাতিপাত করছে। তাদের মধ্যে গর্ভবতী নারী থেকে শুরু করে শিশুও রয়েছে। বর্তমানে সেখানকার আবহাওয়া অসহ্য রকমের উষ্ণ হয়ে পড়েছে।

তার ওপর দীর্ঘদিন ধরে খাবার এবং পানির সঙ্কট দেখা দিয়েছে। বাঁচতে চাইলে তাদের সেখান থেকে হেঁটে অন্যত্র চলে যাওয়ার বিকল্প নেই। যারা সেখান থেকে অন্যত্র যেতে পারবেন না, তাদের মৃত্যু অনিবার্য।

সেখানে ৪৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা সহ্য করতে না পেরে শত শত মানুষ দিগ্বিদিক ছড়িয়ে পড়েছে। কিন্তু বেশিরভাগই রয়েছেন নো ম্যানস ল্যান্ডে। সেখানে অবস্থানরত শরণার্থীদের বিশ্বাস, একদিন তাদেরকে উদ্ধার করে কোনো না কোনো দেশে নিয়ে যাওয়া হবে।

জানেত কামারা নামের এক নারী জানান, আমাদের দলের মধ্যেই অনেকে হঠাৎ হঠাৎ উধাও হয়ে যাচ্ছেন। আসলে পথ না চেনার কারণে তাদের আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এখানে এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে যে, নিজের বাইরে অন্যকে নিয়ে ভাবার সময় নেই। আমি নিজেও গর্ভবতী, কিন্তু আমার পাশেও কেউ নেই।

তিনি আরো বলেন, আমি গত দু’দিন ধরে আমার বাচ্চাকে খুঁজে পাচ্ছি না। পরিচিতদের অনেকেই খুঁজে দেওয়ার চেষ্টা করছে। (আবার কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।)

খানিকবাদে আবার বলেন, (একজনকে দেখিয়ে) ওই মহিলাও তার বাচ্চা হারিয়ে থেলেছে। কয়েকদিন হয়ে গেল। এখনো খুঁজে পায়নি।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের অক্টোবরে ইউরোপীয় ইউনিয়ন অভিবাসীদের ব্যাপারে কড়া নিয়ম জারির পর গণহারে শরণার্থী বিতাড়ন শুরু করে আলজেরিয়া। তার পর থেকেই সাহারা মরুভূমিতে অবস্থান করছেন এই হতভাগারা।