মদ খেয়ে বিমান উড়ানোর প্রস্তুতি নিয়েছিলেন পাইলট

japan-airলন্ডনের হিথরো বিমানবন্দর থেকে জাপান এয়ারলাইনসের ফ্লাইটটির গন্তব্য ছিল টোকিও। পাইলট প্রস্তুত হয়ে উড়োজাহাজের দিকে যাচ্ছিলেন। তখনই ঘটে বিপত্তি। উড়োজাহাজের ক্রুরা খেয়াল করেন, পাইলটের শরীর থেকে মদের গন্ধ বের হচ্ছে।

কাসতোসি জিতকাওয়া (৪২) নামের জাপানি পাইলটের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। দেখা যায়, স্বাভাবিক মাত্রার চেয়ে নয় গুণ বেশি মদ খেয়েছেন তিনি! সঙ্গে সঙ্গে আটক করা হয় ওই পাইলটকে। সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, গত ২৮ অক্টোবর ওই পাইলটকে আটক করা হয়।

পরীক্ষা করে কাসতোসির রক্তে প্রতি ১০০ মিলিলিটারে ১৮৯ মিলিগ্রাম পরিমাণ অ্যালকোহলের উপস্থিতি পাওয়া যায়, যেখানে একজন পাইলটের জন্য অনুমোদিত মদের স্বাভাবিক মাত্রা ২০ মিলিগ্রাম। যদিও ইংল্যান্ড, ওয়েলস ও উত্তর আয়ারল্যান্ডে ৮০ মিলিগ্রাম পর্যন্ত স্বাভাবিক ধরা হয়।

ওই অপরাধের কাসতোসিকে গতকাল বৃহস্পতিবার লন্ডনের একটি আদালতে নেওয়া হয়। বর্তমানে তিনি কারা হেফাজতে আছেন। চলতি মাসের ২৯ তারিখ আইজওর্থ ক্রাউন কোর্টে তাঁর সাজা নির্ধারণ করা হবে।

জাপানি গণমাধ্যম এনএইচকে এক প্রতিবেদনে জানায়, ওই দিন বিমানবন্দরে ক্রু বাসের এক চালক পাইলটের গায়ে মদের গন্ধ পেয়ে পুলিশকে অবহিত করেন। পরে পুলিশ তাঁকে আটক করে।

কাসতোসি জিতকাওয়া ঘটনার দিন তিনি ৭৭৭ বোয়িং উড়োজাহাজের জেএল৪৪ ফ্লাইটের দায়িত্বে ছিলেন। উড়োজাহাজটি হিথরো বিমানবন্দর থেকে জাপানের রাজধানী টোকিও অভিমুখে যাত্রার জন্য প্রস্তুত ছিল। কিন্তু উড্ডয়নের মাত্র ৫০ মিনিট আগে পাইলটের অতিরিক্ত মদপানের বিষয়টি ধরা পড়ে। কাসতোসি সে সময় শ্বাস পরীক্ষাতেও ব্যর্থ হন। ওই ঘটনার ফলে সেদিন বিমানটি উড্ডয়নে ৬৯ মিনিট বিলম্ব হয়।

ওই ঘটনার বিষয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করে এক বিবৃতি দেয় জাপান এয়ারলাইনস। এমন অনাকাঙ্ক্ষিত কোনো কিছুর পুনরাবৃত্তি হবে না, সে প্রতিশ্রুতি জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই আমাদের কাছে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ।’