cosmetics-ad

থাইল্যান্ডে সেই ‘সেক্স কোচের’ বিচার শুরু

thai

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়া হস্তক্ষেপ করেছিল কিনা সেই অভিযোগের তদন্ত চলছে। এ সংক্রান্ত অনেক তথ্য জানে বলে দাবি করা কথিত এক নারী ‘সেক্স কোচের’ বিচার শুরু হয়েছে থাইল্যান্ডে। গত বছর থাইল্যান্ডের পাতায়া সমুদ্র সৈকত থেকে তাকে আটক করা হয়। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বেলারুশ বংশোদ্ভূত কথিক ওই নারী সেক্স কোচের নাম আনাস্তাসিয়া ভাসুকেভিচ। মার্কিন নির্বাচন নিয়ে তার কাছে তথ্য আছে বলে দাবি করে গত বছর শিরোনাম হন তিনি। তার দাবি, ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণায় রাশিয়ার সংশ্লিষ্টতা সংক্রান্ত অনেক তথ্য আছে তার কাছে। যুক্তরাষ্ট্র যদি তাকে থাইল্যান্ড থেকে মুক্ত করে তবেই এ সংক্রান্ত তথ্য গুলো তিনি দিবেন বলে জানান।

আনাস্তাসিয়া ভাসুকেভিচ অবশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নাস্তায়া রিবকা নামেই পরিচিত। গত বছরের ফ্রেব্রুয়ারিতে থাইল্যান্ডের পাতায়া সমুদ্র সৈকতে কথিত ‘সেক্স প্রশিক্ষণ সেশন’ থেকে ভাসুকেভিচসহ দুজনকে আটক করা হয়। আলেকজান্ডার কিরিলভ নামের অন্য আরেক ব্যক্তিও তার দলের সদস্য ও ‘ফ্রি সেক্স’ বিষয়ক পরামর্শক।

থাইল্যান্ড কর্তৃপক্ষ অভিযোগ তোলে, যারা তাদের ওই ফ্রি সেক্স সেশনে অংশগ্রহণ করেন তাদেরকে অর্থের বিনিময়ে পতিতাবৃত্তির কাজ করতে বাধ্য করেন তারা। তাছাড়া গত এপ্রিলে ভাসুকেভিচ, কিরিলভ ও তাদের আরও ছয়জন সহযোগীর বিরুদ্ধে পতিতাবৃত্তি ও অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তোলে দেশটি।

মঙ্গলবার থাইল্যান্ডের পতায়ায় ওই ছয় আসামীকে কারাবন্দীর পোশাক পড়ে আদালতে হাজির হতে দেখা যায়। এর আগে অভিযুক্তদের তোলা একটি আপিলের শুনানি পিছিয়ে দেয় আদলাত। আসামীরা অনুরোধ করেছিলেন যে, তাদের মামলাটি যেন এই আদালত থেকে ব্যাংককের আদালতে স্থানান্তর করা হয়।