cosmetics-ad

চীন ভ্রমণ করলে সৌদি ফিরতে পারবে না প্রবাসীরা

corona

চীনে সব ধরনের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মধ্যপ্রাচ্যের কট্টরপন্থি দেশ সৌদি আরব। দেশটির নাগরিক এবং সেখানে বসবাসরত বিদেশি নাগরিকদের ওপর এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, কেউ এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে তাকে শাস্তি পেতে হবে।

এসপিএ নিউজ এজেন্সির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, সৌদি নাগরিক এবং বিদেশি নাগরিকদের চীন ভ্রমণ বাতিল করা হয়েছে। স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা বিবেচনা করেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

সৌদিতে অবস্থানরত প্রবাসীরা এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে তাদের আর দেশটিতে ফিরতে দেওয়া হবে না বলে নিশ্চিত করা হয়েছে। চীনে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় অনেক দেশই তাদের নাগরিকদের দেশটি থেকে ফিরিয়ে নিতে শুরু করেছে এবং বিভিন্ন দেশ চীন ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে। তখন এই ভাইরাসকে রহস্যজনক ভাইরাস বলা হলেও পরে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এর নাম দিয়েছে ২০১৯-নভেল করোনাভাইরাস।

যতই সময় যাচ্ছে চীনে এই ভাইরাসের প্রকোপ প্রায় মহামারির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে ৬৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। সরকারি এক সূত্র অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত ৩০ হাজারের বেশি মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। অপরদিকে একদিনেই নতুন করে আরও ৭৩ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে ন্যাশনাল হেলথ কমিশন নিশ্চিত করেছে।

এছাড়া নতুন করে আরও তিন হাজার একশ ৪৩ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ফলে এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৩১ হাজার ১৬১। আক্রান্তদের মধ্যে চার হাজার ৮শ জনের অবস্থা গুরুতর।

এখন পর্যন্ত ২৮টি দেশ ও অঞ্চলে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েছে। সৌদি আরব এই তালিকায় নেই, যদিও প্রতিবেশী আরব আমিরাতে পাঁচজন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এরা সবাই সাম্প্রতিক সময়ে চীনের উহান শহর থেকে দেশে ফিরেছেন।

অন্যান্য আরব দেশ যেমন বাহরাইন, কুয়েত এবং ওমানও তাদের দেশের নাগরিকদের চীনে সব ধরনের ভ্রমণের ওপর কড়াকড়ি আরোপ করেছে। এই মুহূর্তে চীন সফর না করার জন্য নাগরিকদের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।