sentbe-top

কেরানী থেকে চেয়ারম্যান, শেকড় থেকে শিখরে

সম্প্রতি কোরিয়ার সবচেয়ে বড় আর্থিক প্রতিষ্ঠান উরি ফিন্যানশিয়াল গ্রুপের (Woori Financial Group) প্রধান নির্বাহী হয়েছেন লী সুন-উ এবং  জগদ্বিখ্যাত জার্মান মোটর গাড়ি প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান বিএমডব্লিউর (BMW Korea) প্রথম এশিয়ান ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং কোরিয়ার প্রধান নির্বাহীর পদ দখলে নিয়েছেন কিম হো-জুন। নিজেদের যোগ্যতাবলেই আজকে এই শীর্ষপদগুলোতে অধিষ্টিত হয়েছেন তারা দুইজন। এই দুইজনকে নিয়ে কোরিয়া টাইমসের রিপোর্ট অবলম্বনে বাংলা টেলিগ্রাফের জন্য রিপোর্টটি তৈরী করেছেন মোঃ মুহিবুল্লাহ।

উরি গ্রুপের প্রধান নির্বাহী লী সুন-উ এবং বিএমডব্লিউ কোরিয়ার প্রধান নির্বাহী কিম হো-জুন, সম্পূর্ণ ভিন্ন কর্মক্ষেত্রের দু’জন ব্যক্তিত্ব। প্রথমজন ব্যাংকার, দ্বিতীয়জন গাড়ি আমদানিকারক। তবে দু’জনের আজকের অবস্থানে উঠে আসার পিছনের গল্পটায় বেশ মিল। অনেকটা শূন্য থেকে শুরু করে আজ তাঁরা সাফল্যের চূড়ায়। কিম হতে যাচ্ছেন জগদ্বিখ্যাত জার্মান মোটর গাড়ি প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান বিএমডব্লিউর প্রথম এশিয়ান ভাইস প্রেসিডেন্ট, আর লী ইতোমধ্যেই দখলে নিয়েছেন কোরিয়ার সবচেয়ে বড় আর্থিক প্রতিষ্ঠান উরি ফিন্যানশিয়াল গ্রুপের চেয়ারম্যানের পদটি।

 

 বিএমডব্লিউর কোরিয়ার প্রধান নির্বাহী কিম হো-জুন
বিএমডব্লিউর কোরিয়ার প্রধান নির্বাহী কিম হো-জুন

বিএমডব্লিউ কোরিয়া বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, ১লা জুন থেকে কিম প্রতিষ্ঠানটির ভাইস প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করবেন। ২০০৩ সালে সিনিয়র এক্সিকিউটিভ পদে উন্নতি লাভের ১০ বছর পর আরেকটি ধাপ উপড়ে উঠতে যাচ্ছেন তিনি। সারা বিশ্বে বিএমডব্লিউর ৫০ জন ভাইস প্রেসিডেন্টের একজন হিসেবে এই প্রথমবারের মতো কোন এশিয়ান নিয়োগ পেতে যাচ্ছেন। কিম প্রতিষ্ঠানটির প্রথম এশিয়ান সিনিয়র এক্সিকিউটিভও ছিলেন।

বিএমডব্লিউকে কোরিয়ায় বিদেশী গাড়ি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে এক নম্বরে উঠিয়ে আনার স্বীকৃতিই এই পদোন্নতি। গেলো বছর প্রতিষ্ঠানটি কোরিয়ায় ২৮,১৫২ টি গাড়ি বিক্রয় করেছে যা ২০১১ সালের তুলনায় ২০ শতাংশ বেশী। এছাড়া বিএমডব্লিউ কোরিয়া ফিউচার ফান্ড প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তিনি প্রতিষ্ঠানটির সামাজিক দায়বদ্ধতা পূরণ করে যাচ্ছেন। মূলত গ্রাহক ও পরিবেশকদের অনুদান নির্ভর এই উদ্যোগটি দুঃস্থ ও অসহায় মানুষের কল্যানে কার্যকর ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে।

এই সাফল্য খুব সহজে আসে নি। নিরলস শ্রম আর সাধনার ফসল আজকের কিম হো-জুন। হাই স্কুলের গণ্ডি পেরিয়েই কিম কাজ শুরু করেন বিভিন্ন বিদেশী প্রতিষ্ঠানের কোরিয়া শাখায়। এই শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে বড় কোন প্রতিষ্ঠানের বড় পদে আসীন হওয়ার কথা কেউ কল্পনাও করতে পারবে না। কিন্তু নিজের যোগ্যতায়ই কিম ১৯৯৫ সালে বিএমডব্লিউ কোরিয়ার নির্বাহী পরিচালকের আসনে বসে যান। এরপর তাঁকে আর পিছন ফিরে তাকাতে হয় নি। ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠানটির কোরিয়া শাখার ভাইস প্রেসিডেন্ট, ২০০০ সালে সিইও, ২০০৩ সালে মূল প্রতিষ্ঠানের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ হয়ে আজ তিনি বিএমডব্লিউর সেন্ট্রাল ভাইস প্রেসিডেন্ট।

২০০০ সাল থেকে পুনরায় পড়াশুনা শুরু করে কিম স্নাতক, স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করে ডক্টরেট ডিগ্রীও অর্জন করেছেন।

কেরানী থেকে চেয়ারম্যান!

উরি ফিন্যানশিয়াল গ্রুপের চেয়ারম্যান মনোনয়ন কমিটি বৃহস্পতিবার প্রতিষ্ঠানটির নতুন কর্ণধার হিসেবে লী’র নাম ঘোষণা করেছে। লী সুন-উ একইসাথে উরি ব্যাংক এবং উরি ফিন্যানশিয়ালের প্রধানের দায়িত্ব পালন করবেন। উরি গ্রুপের সবচেয়ে বড় অংশীদার কোরিয়া সরকার কর্তৃক প্রতিষ্ঠানটির বেসরকারিকরণ প্রক্রিয়ায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা এবং প্রতিষ্ঠানটির অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন বিষয়ে সবচেয়ে বেশী অভিজ্ঞতাসম্পন্ন হিসেবে উরি ব্যাঙ্কের বর্তমান চেয়ারম্যান লী কোরিয়ার সবচেয়ে বড় আর্থিক প্রতিষ্ঠানটির শীর্ষ পদের জন্য এই মুহূর্তে সবচেয়ে যোগ্য ব্যক্তিই ছিলেন। লী’ই হতে যাচ্ছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রথম কর্মকর্তা যিনি পদোন্নতি পেয়ে পেয়ে চেয়ারম্যানের আসনে বসবেন।

উরি গ্রুপের প্রধান নির্বাহী লী সুন-উ
উরি গ্রুপের প্রধান নির্বাহী লী সুন-উ

১৯৭৭ সালে কমার্শিয়াল ব্যাংক অব কোরিয়ার (সিবিসি) সাধারন কেরানী হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেছিলেন লী। সেই সিবিসিই আজকের উরি ব্যাংক, যার প্রেসিডেন্ট হিসেবে লী দায়িত্ব পালন করছেন ২০১১ সাল থেকে।

মনোনয়ন কমিটি উরি গ্রুপের বেসরকারিকরণ প্রক্রিয়ায় সরকারের সাথে প্রতিষ্ঠানটির বিভিন্ন ইউনিয়নের সম্ভাব্য মতবিরোধের বিষয়টি সামনে রেখে একসময়ের ইউনিয়ন লীডার লীকেই প্রতিষ্ঠান প্রধানের দায়িত্ব তুলে দিচ্ছে।

লী বলেছেন বেসরকারিকরণ প্রক্রিয়ায় উরি গ্রুপের ইতিবাচক পুনর্গঠনে তিনি সর্বোচ্চ প্রয়াস চালাবেন। প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে গ্রুপ চেয়ারম্যান ও ব্যাংক সিইওর দুটো পদই ছেড়ে দেয়ার আভাস দিয়েছেন লী সুন-উ।

 

sentbe-top