sentbe-top

হুমায়ূন আহমেদের জনপ্রিয় ১০ উক্তি

humayun-ahmedবাংলা সাহিত্যের জননন্দিত লেখক হুমায়ূন আহমেদের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ১৯৭২ সালে প্রকাশিত প্রথম উপন্যাস ‘নন্দিত নরকে’ দিয়েই হুমায়ূন আহমেদ কথাসাহিত্যে পালাবদলের তাৎপর্যপূর্ণ ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। একের পর জনপ্রিয় উপন্যাস রচনা করে গেছেন। এই কথার জাদুকরের বিভিন্ন উপন্যাসে জনপ্রিয় হয়ে যাওয়া উক্তিগুলো পাঠকদের উদ্দেশ্যে তুলে ধরা হলো :

০১ : ঈশ্বর যদি কাউকে মারতে চান তাহলে কি তার কোনো আয়োজন করার প্রয়োজন আছে? তাহলে মরতে কিসের ভয়, একবারই তো মরতে হবে।

০২ : ভালোবাসাবাসির ব্যাপারটা হাততালির মতো। দুটা হাত লাগে। এক হাতে তালি বাজে না। অর্থাৎ একজনের ভালোবাসায় হয় না।

০৩ : চাঁদের বিশালতা মানুষের মাঝেও আছে, চাঁদ এক জীবনে বারবার ফিরে আসে। ঠিক তেমন মানুষ প্রিয় বা অপ্রিয় যেই হোক, একবার চলে গেলে আবার ফিরে আসে।

০৪ : আমার হারিয়ে ফেলার কেউ নেই। কাজেই খুঁজে পাওয়ারও কেউ নেই। আমি মাঝে মাঝে নিজেকে হারিয়ে ফেলি, আবার খুঁজে পাই।

০৫ : যে স্বপ্ন দেখতে জানে, সে তা পূর্ণও করতে পারে। আমরা মনে হয় স্বপ্ন দেখাই ভুলে গেছি। আর যেটুকুই বা দেখি তা নিজেরাই বিশ্বাস করতে চাই না…তাই পূর্ণও করতে পারি না।

০৬ : নারীদের সৃষ্টিকর্তা পূর্ণতা দিয়েই পাঠিয়েছেন। শুধু পূর্ণতাই না অতিরিক্ত দিয়ে দিয়েছেন। তাই তো আমরা ‘অপূর্ণ পুরুষ’ পূর্ণ হতে এই নারীদেরই প্রয়োজন হয়।

০৭ : তুমি ১০টি সত্য এর মাঝে একটি মিথ্যা মিশিয়ে দাও- সেই মিথ্যাটিও সত্য হয়ে যাবে কিন্তু তুমি ১০টি মিথ্যার মাঝে একটি সত্য মিশাও- সত্য সত্যই থেকে যাবে…..সেটি আর মিথ্যা হবে না, সত্য আসলেই সুন্দর।

০৮ : মেয়েদের মন পৃথিবীর সবচেয়ে স্পর্শকাতর জায়গা। এই মন অনেক কঠিন বিষয় সহজে মেনে নেয়, আবার অনেক সহজ বিষয় সহজে মেনে নিতে পারে না।

০৯ : মিথ্যা বলা মানে আত্মার ক্ষয়। জন্মের সময় মানুষ বিশাল এক আত্মা নিয়ে পৃথিবীতে আসে। মিথ্যা বলতে যখন শুরু করে তখন আত্মার ক্ষয় হতে থাকে। বৃদ্ধ বয়সে দেখা যায়, আত্মার পুরোটাই ক্ষয় হয়ে গেছে।

১০ : একজন মানুষকে সত্যিকারভাবে জানার উপায় হচ্ছে তার স্বপ্নটা জানা। বয়সকালেই মানুষ ছোটখাট ভুল করতে থাকে।

sentbe-top