এবার জার্মানিতে চালু হল সেক্স ডলের পতিতালয়!

sex-dollসম্প্রতি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চাহিদা বাড়ছে সেক্স ডলের। সেই চাহিদার হিসেব কষেই এবার জার্মানিতে চালু হয়েছে সেক্স ডলের পতিতালয়। দেশটিতে প্রথম সেক্স ডলের এই পতিতালয়ে সময় কাটাতে ভীড় করছেন বিভিন্ন বয়সী এবং পেশার মানুষ। এমনকি স্ত্রীরা তাদের স্বামীদের পতিতালয়ে রেখে গাড়িতে বসে অপেক্ষা করেন।

ডেইলি মেইল জানায়, ২৯ বছর বয়সী ইভিলেন সোয়ার্জ নামের এক নারী পতিতালয়টি চালু করেছেন। তিনি এর নাম দিয়েছেন বরডল। প্রাথমিকভাবে তিনি ১১টি সিলিকনের ডল কিনে যাত্রা শুরু করেছেন। ৩০ কেজি ওজনের প্রতিটি ডলের দাম প্রায় এক হাজার ৮শ ইউরো।

ইভিলেনের পতিাতলয়ের প্রতিটি ডলের উচ্চতা, চুলের রং এবং বুকের আকার ভিন্ন ভিন্ন। এর মধ্যে নীল-চুলের একটি ডল হুবহু জাপানের জনপ্রিয় এনিমেশন চরিত্র এনিমে’র অনুরূপ। এই পতিতালয় ইতোমধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছে। প্রতিদিন একেকটি ডল ১২বার করে বুক দেয়া হয়। এর জন্য প্রতি ঘণ্টায় ৭১ ইউরো করে দিতে হয়।

sex-dall-brorhelইভিলেন সোয়ার্জ জানান, প্রতিদিন বিভিন্ন বয়স এবং পেশার অনেক মানুষ এখানে আসেন। এদের মধ্যে প্রায় ৭০ ভাগ মানুষ পুনরায় আসেন। তবে সবাই যে শুধু যৌন চাহিদা মেটানোর জন্য আসেন তা নয়, অনেকে কৌতুহলবশত আসেন। আবার অনেকের স্ত্রী স্বামীদের এখানে আসতে দিয়ে গাড়িতে অপেক্ষা করেন। ওইসব মহিলারা একে শুধু ডল হিসেবেই দেখেন।

এই পেশার মধ্যে খারাপ কিছু দেখেন না ইভেলিন। খদ্দেরের চাহিদা পূরণ এবং আনন্দদানের জন্যই এই ব্যবস্থা রাখার কথা জানান তিনি। সেখানে যৌনপল্লীর সফলতা দেখে ইউরোপের আরও কয়েকটি দেশে একই রকম আয়োজনের তোড়জোড় শুরু হয়েছে।

sex-dall-brorhel
সেক্স ডল পরিচর্যা করছেন ইভিলেন

তবে ইভিলেন তার একটি খারাপ অভিজ্ঞতার কথাও জানান। তিনি বলেন, একজন গ্রাহক অতিরিক্ত উত্তেজনাবশত এখানকার সবচেয়ে জনপ্রিয় ডল ‘আন্না’ ভেঙ্গে ফেলেন। অবশ্য তিনি নতুন আরেকটি আনার পরিকল্পনা করেছেন বলে জানান।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সেক্স ডলের প্রতি আসক্তি দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ায় এ ধরণের পতিতালয় আরও বৃদ্ধি পাবে এবং এর জন্য আরও অনেক সেক্স ডল প্রয়োজন হবে।

সূত্র: ডেইলি মেইল