কোরিয়ায় অবৈধদের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান

কোরিয়ায় অবৈধভাবে অবস্থানকারীদের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান নিয়েছে কোরিয়ান সরকার। কোরিয়ান সরকার বাংলাদেশ থেকে কর্মী প্রেরণকারী সংস্থা বোয়েসেলকে অবৈধভাবে অবস্থানকারীদের অবস্থা জানিয়েছে। বাংলাদেশী কর্মীরা অবৈধভাবে অবস্থান করায় নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে কর্মী প্রেরণে। বোয়েসেল আজ এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে রি-এন্ট্রির মাধ্যমে কোরিয়ায় প্রবেশ করার পর অবৈধভাবে অবস্থান করার দায়ে ২০ জন কর্মীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। বোয়েসেলের বিজ্ঞপ্তিটি হুবহু তুলে দেওয়া হল।

বাংলাদেশ ওভারসিজ এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেড (বোয়েসেল) এবং কোরিয়া সরকারের সাথে সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী জি টু জি পদ্ধতিতে এমপ্লয়মেন্ট পারমিট সিস্টেম (ইপিএস)-এর আওতায় কোরিয়া গমন করছে। যা বর্তমানে চলমান আছে। কোরিয়াগামী নিম্নবর্ণিত ২০ (বিশ) কর্মীর জ্ঞাতার্থে ও কার্যার্থে জানানো যাচ্ছে যে, কোরিয়া সরকারের প্রতিনিধি অত্র অফিসকে অবহিত করে যে, ভিসার মেয়াদ শেষে নিম্নবর্ণিত রি-এন্ট্রি কমিটেড ২০ (বিশ) জন কর্মী দেশে ফেরত না এসে অবৈধভাবে কোরিয়ায় অবস্থান করছেন। কোরিয়া সরকারের সঙ্গে বোয়েসেলের সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী যা আইনের পরিপন্থি। বাংলাদেশী কর্মীদের এরূপ কর্মকাণ্ড ভবিষ্যতে কোরিয়ায় কর্মী প্রেরণের ক্ষেত্রে হুমকির সম্মুখীন হওয়ার আশংকা রয়েছে।

বোয়েসেলের সঙ্গে কোরিয়াগামী কর্মীদের নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে সম্পাদিত চুক্তি অনুযায়ী ভিসার মেয়াদ শেষে দেশে ফেরত আসতে অঙ্গিকারবদ্ধ। কিন্তু কোরিয়ায় চাকুরির মেয়াদ শেষে নিম্নবর্ণিত ২০ (বিশ) জন কর্মী দেশে না এসে অবৈধভাবে কোরিয়ায় অবস্থান করে বোয়েসেলের সাথে সম্পাদিত চুক্তি ভঙ্গ করেছেন। এ প্রেক্ষিতে নিম্নবর্ণিত ২০ (বিশ) জন কর্মী আগামী ১৫ (পনের) দিনের মধ্যে দেশে ফেরত এসে বোয়েসেলে রিপোর্ট করার জন্য অনুরোধ করা হল। কোরিয়া হতে আগামী ১৫ (পনের) দিনের মধ্যে দেশে ফেরত আনার বিষয়ে ২০ (বিশ) জন কর্মীর পিতার নিকট বোয়েসেল হতে পত্র প্রেরণ করা হয়েছে। উক্ত কর্মীগণ যথাসময়ে দেশে ফেরত না আসার ব্যর্থতাজনিত চুক্তিভঙ্গের কারণে ২০ (বিশ) জন কর্মীর অভিভাবক ও কর্মীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে এবং তাঁদের জাতীয় পরিচয়পত্র বাতিল ও নতুন করে পাসপোর্ট ইস্যু না করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট বোয়েসেল হতে পত্র প্রেরণ করা হবে।

এছাড়াও ভবিষ্যতে ইপিএস এর আওতায় কোরিয়া কর্মরত আর কোন কর্মী ভিসার মেয়াদ শেষে দেশে ফেরত না এসে অবৈধভাবে অবস্থান করলে তাঁদের বিরুদ্ধেও উপর্যুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। দেশের স্বার্থে এ সকল অবৈধ পন্থা অবলম্বন না করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হল।