বিমানবন্দরে হুয়াওয়ের ‘স্মার্ট এয়ারপোর্ট আইসিটি সল্যুশন’ সেবা

biman-huaweiবিমানবন্দরে যাত্রীদের আধুনিক সেবা প্রদানের জন্য ‘স্মার্ট এয়ারপোর্ট আইসিটি সল্যুশন’ নামে বিশেষ সেবা নিশ্চিত করেছে তথ্যপ্রযুক্তি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। সম্প্রতি শেষ হওয়া ‘প্যাসেঞ্জার টার্মিনাল এক্সপো-২০১৮’ নতুন এ প্রযুক্তি প্রদর্শন করে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রদর্শনীর মূল থিম ‘লিডিং নিউ আইসিটি, দ্য রোড টু ডিজিটাল এভিয়েশন’। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৭ হাজার প্রতিনিধি এবং ২২৫ প্রদর্শক ওই প্রদর্শনীতে অংশ নেন। প্রদর্শনীতে বিশ্বের সবচেয়ে আধুনিক উন্নয়ন ও উদ্ভাবন সম্পর্কে আলোচনা করা হয়।

হুয়াওয়ে এন্টারপ্রাইজ বিজনেস গ্রুপের ট্রান্সপোর্ট সেক্টরের প্রেসিডেন্ট ইউয়ান জিলিন বলেন, ‘স্মার্ট এয়ারপোর্টের ধারণা এখন বাস্তবে রূপ নিচ্ছে। কারণ বিশ্বের বিভিন্ন এয়ারপোর্ট কর্তৃপক্ষ নতুন নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করছে। ফলে দেশের এয়ারপোর্টগুলোতে ফ্লাইট সার্ভিস, প্যাসেঞ্জার সার্ভিস এবং এয়ারপোর্ট পরিচালনা ব্যবস্থা ডিজিটাল ও দৃশ্যমান হবে। হুয়াওয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের এয়ারপোর্টগুলোতে নতুন নতুন আইসিটি প্রযুক্তি ব্যবহারে সহায়তা করছে।

huawei-biman

উল্লেখযোগ্য হলো- ক্লাউড সিস্টেম, ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি) এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার। মূলত এয়ারপোর্টের নিরাপত্তা নিশ্চিত, দক্ষভাবে এয়ারপোর্ট পরিচালনা ও সেবার মান বাড়ানো এবং যাত্রীদের জন্য সবচেয়ে ভালো ভ্রমণ পরিবেশ নিশ্চিত করাই আমাদের মূল লক্ষ্য।’

জানা গেছে, হুয়াওয়ে এয়ারপোর্টগুলোতে ইন্টেলিজেন্ট প্যানোরামিক ভিডিও সার্ভেইলেন্স প্রযুক্তি ব্যবহার করবে। ফলে এয়ারফিল্ড, টার্মিনাল বিল্ডিং এবং পাবলিক এলাকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। ওইসব ক্যামেরাতে মানুষের মুখমণ্ডল চিহ্নিতকরণ প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে, যা এয়ারপোর্ট পরিচালনা ভবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে এবং যাত্রীদের শনাক্ত করতে সহায়তা করবে।

ইন্টিগ্রেটেড কমিউনিকেশন্স প্লাটফর্মের (আইসিপি) মাধ্যমে হুয়াওয়ে এয়ারপোর্টগুলোতে বহুমুখী যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তুলবে। যার মধ্যে থাকবে ইএলটিই ব্রডব্যান্ড কমিউনিকেশন্স, ভিডিও কনফারেন্স এবং আইপি টেলিফোন ব্যবস্থা। এটা এয়ারপোর্ট পরিচালনা ব্যবস্থাকে আরও দক্ষ করবে এবং রিয়েল টাইম অ্যাসাইনমেন্ট ও কাজের রিপোর্টিং এর মাধ্যমে এয়ারপোর্টের গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং ব্যবস্থাকে আরও উন্নত করবে।

সৌজন্যে- জাগো নিউজ