sentbe-top

আমিরাতে নতুন ভিসা পদ্ধতি চালু

amirat-visaসংযুক্ত আরব আমিরাতের চালু হল বহুল প্রতীক্ষিত নতুন ভিসা পদ্ধতি। দেশটিতে বসবাসরত প্রবাসীরা আজ (২১ অক্টোবর) থেকে নতুন এ ভিসা পদ্ধতির সুবিধা পাবেন বলে জানিয়েছে ফেডারেল অথরিটি ফর আইডেন্টিটি এণ্ড সিটিজেনশিপ (এফএআইসি)। নুতন এ ভিসা পদ্ধতি প্রবাসীদের পরিবার, ভিজিটর ভিসা প্রাপ্ত প্রবাসী এবং শিক্ষর্থীদের জন্য বিশেষ কিছু সুবিধা প্রদান করবে দেশটির সরকার।

নতুন এই ভিসা পদ্ধতির আওতায় বিধবা এবং তালাকপ্রাপ্ত নারী ও তাদের সন্তানরা এক বছরের ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর সুবিধা পাবেন। এছাড়া যাদের ভিজিট ভিসা আছে তারা দেশ ছাড়ার আগে সর্বোচ্চ দু’বার ৩০ দিনের জন্য ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করতে পারবেন। নতুন এ ভিসা পদ্ধতিতে তালাকপ্রাপ্ত নারীদের তালাক কার্যকর হওয়ার দিন থেকে এবং বিধবা নারীদেরকে তার স্বামীর মৃত্যুর দিন থেকে এক বছরের জন্য ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগ দেয়া হবে।

এফএআইসি’র পররাষ্ট্র ও বন্দর বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার সাঈদ রশিদী বলেন, বিধবা ও তালাকপ্রাপ্ত নারীদের এ ভিসার জন্য আবেদন করতে কোনও টাকার প্রয়োজন হবে না।

তিনি বলেন, ‘পরিবারের প্রধান কর্মক্ষম ব্যক্তির মৃত্যু কিংবা তালাকপ্রাপ্ত হওয়ার কারণে নারীরা যে সামাজিক ও অর্থনৈতিক সমস্যার মধ্যে পড়েন, তা থেকে রক্ষা করতেই নারীদের এ সুবিধা দিচ্ছে আমিরাত সরকার।’

এর আগে আমিরাতে বসবাসকারী কোনও নারীকে তার স্বামীর মৃত্যু হলে কিংবা তালাকপ্রাপ্ত হলে সন্তানসহ দেশে ফিরে আসতে হতো। কিন্তু নতুন এই ভিসা পদ্ধতির কারণে এখন তাদেরকে আর আমিরাত ছেড়ে আসতে হবে না। তারা আরও এক বছর সেখানে থাকার সুযোগ পাবে।

এছাড়া যাদের কাছে ভিজিট ভিসা আছে তারা দেশটিতে থাকা অবস্থায় সর্বোচ্চ দু’বার ৩০ দিনের ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর জন্য আবেদন করতে পারবেন। তবে এ সুবিধা পেতে প্রতিবার তাদেরকে ৬০০ দিরহাম খরচ করতে হবে। এছাড়াও আমিরাতে পড়তে যাওয়া শিক্ষর্থীরা নতুন এ ভিসা পদ্ধতির কারণে বেশ কিছু সুযোগ-সুবিধা পাবেন।

দেশটিতে এর আগে ভিজিটর ভিসা প্রাপ্তদের তিন মাসের ভিসার মেয়াদ শেষ হলেই এবং পর্যটকদের এক মাসের ভিসার মেয়াদ শেষ হলেই দেশে ফিরে আসতে হতো।

sentbe-top