cosmetics-ad

ইসরাইলি কারাগারে ১৮ বছর ও একটি নকিয়া হ্যান্ডসেটের গল্প

imad

বিদেশ থেকে ফিরছিলেন তিনি, ফেরার পথে কিনেছিলেন প্রিয় স্ত্রীর জন্য একটি উপহার। কিন্তু দেশে ফেরার পথে রাফা ক্রসিংয়ে তাকে গ্রেফতার করে ইসরাইলি বাহিনী। তার দীর্ঘ ১৮টি বছর কেটে গেছে ইহুদিবাদী দেশটির কারাগারে। কোন অপরাধ কিংবা বিচার ছাড়াই কারাগারে জীবনের এতগুলো বছর কাটিয়েছেন। এতদিন পর জেল থেকে মুক্তি পেয়ে সেই উপহারই তুলে দিলেন স্ত্রীর হাতে।

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকার বাসিন্দা ইমাদ আল দিন আল সাফতাওইর জীবনের করুণ গল্প এটি। ২০০০ সালে দুবাই থেকে দেশে ফেরার সময় মিসর হয়ে রাফ ক্রসিং দিয়ে গাজায় প্রবেশের সময় তাকে আটক করে ইসরাইলি বাহিনী। তার সাথে থাকা সব কিছুই চলে যায় কারাগারের গুদাম ঘরে। ব্যাগের এক কোনে আরো অনেক কিছুর সাথে পড়ে ছিলো মোবাইল ফোনটি।

দীর্ঘ ১৮ বছর কারাভোগের পর গত ১২ ডিসেম্বর মুক্তি মিলেছে দখলদারদের কারাগার থেকে। মুক্তির সময় তার ব্যাগগুলো ফিরিয়ে দিয়েছে ইসরাইলিরা। মুক্তির পর প্রথম সাক্ষাতেই স্ত্রীকে দিয়েছেন পছন্দ করে কেনা মোবাইল সেটটি। এতদিনে হয়তো দেড়যুগ আগের সেই মডেলের মোবাইল ফোনের ব্যবহার আর নেই, অব্যবহৃত থাকার ফলে সেটটিও হয়তো নষ্ট হয়ে গিয়েছে; কিন্তু ভালোবাসার কাছে এসবই যে মূল্যহীন। প্রিয়জনের হাতে প্রিয় উপহারটি তুলে দিতে পারার মধ্যেই যে আনন্দ তা আর মিস করতে চাননি ইমাদ। ইমাদের কিশোর কন্যা টুইটার পোস্টে তার বাবা-মায়ের এই ঘটনাটি শেয়ার করার পর সেটি ভাইরাল হয়ে গেছে আরব বিশ্বে।

সৌজন্যে- নয়া দিগন্ত