cosmetics-ad

ইস্তাম্বুলের আবাসিক এলাকায় ভেঙে পড়ল হেলিকপ্টার

helicopter-crash
বিধ্বস্ত হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষ সরাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা

ইস্তাম্বুলের চেকমেকয় জেলার পাশে একটি আবাসিক এলাকায় সোমবার একটি সামরিক হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে চারজন সেনা সদস্য নিহত হয়েছে। স্থানীয় গভর্নর সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

এক বিবৃতিতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, দুর্ঘটনায় ইউএইচ-ওয়ান টাইপের একটি হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়। তবে এখনো পর্যন্ত দুর্ঘটনার কারণ জানা যায়নি। এ ব্যাপারে ইতোমধ্যে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

ইস্তাম্বুলের গভর্নর আলি ইয়ারলিকায়া জানিয়েছিলেন, এ ঘটনায় আহতদের চিকিৎসার জন্য দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কিন্তু পরে হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়, আহতদের সবাই মারা গেছেন। ইতোমধ্যেই উদ্ধারকর্মীরা বিধ্বস্ত হেলিকপ্টারের বিভিন্ন অংশ সরিয়ে ফেলার কাজে যুক্ত হয়েছে।

তুরস্কের সংবাদমাধ্যম জানায়, স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ছয়টা ৫১ মিনিটে সুলতানগাজি সড়কের পাশে পার্কভার্দে হাউজিং কমপ্লেক্সে হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান এ দুর্ঘটনায় এক শোকবার্তা প্রকাশ করেন। এতে তিনি বলেন, জাতির এ ক্ষতিতে আমরা গভীর দুঃখ বোধ করছি। তুর্কি পার্লামেন্টের স্পিকার বিনালি ইলদিরিমও টুইটারে শোক প্রকাশ করেন।

গত নভেম্বরে স্যাঙ্ক্যাটপি শহরে একই ধরনের আরেকটি হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়েছিল। সে সময়ও চারজন সেনাসদস্য নিহত হয়েছিল এবং একজন আহত হয়েছিল।

এর আগে ২০০২-১১ সালের মধ্যে তুরস্কে চারটি ইউএইচ-ওয়ান হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়েছিল। এর মধ্যে ২০০৬ সালে উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য এরজিনক্যানে এবং ২০১১ সালে আঙ্কারায় ঘটা দুই দুর্ঘটনায় মোট ১০ জন সেনা কর্মকর্তা নিহত হন।

১৯৭৬ সালে ইউএইচ-ওয়ান হেলিকপ্টার উৎপাদন বন্ধ করে দেয়া হয়। বিভিন্ন দেশের সেনাবাহিনীই মূলত এ হেলিকপ্টারগুলো ব্যবহার করে থাকে। বিশেষ করে প্রশিক্ষণ, উদ্ধারকার্য ও মালামাল পরিবহণে এসব হেলিকপ্টার বেশি ব্যবহৃত হয়।

সূত্র: ডেইলি সাবাহ