cosmetics-ad

যুক্তরাষ্ট্রে ধর্ষণ ঠেকাতে নপুংসক ইনজেকশন

syringeধর্ষণের পরিমাণ যেভাবে বাড়ছে তা মানুষের বিকারগ্রস্ততার প্রতি ইঙ্গিত দেয়। তাই ভয়াবহ এই সামাজিক ব্যাধি রুখতে যুক্তরাষ্ট্রে প্রণীত হয়েছে নতুন একটি আইন। এখন থেকে ১৩ বছরের কম বয়সী কোনো কিশোরীকে ধর্ষণ করলে ইনজেকশন প্রদানের মাধ্যমে ধর্ষকের যৌন ক্ষমতা নষ্ট করে দেয়া হবে।

শিশু ধর্ষণ ঠেকাতে সম্প্রতি নতুন এই আইনটি পাস করেছে যুক্তরাষ্ট্রের আলাবামা অঙ্গরাজ্য। আইন অনুযায়ী, কম বয়সী শিশুর ধর্ষককে ইনজেকশন দিয়ে বা ওষুধের মাধ্যমে নপুংসক করে দেয়া হবে। যাতে সে আজীবনের জন্য যৌনক্ষমতা হারায়।

শিশুদের ধর্ষণের হাত থেকে বাঁচাতেই এমন আইন করেছে তারা। বলা হচ্ছে, যে ইনজেকশনের কথা বলা হচ্ছে তা একবার দেয়া হলে ধর্ষক দ্বিতীয়বার কারো সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করতে পারবে না ৷ শিশু ধর্ষণের মতো জঘন্য অপরাধের শস্তি ক্ষত তাকে সারাজীবন বয়ে বেড়াতে হবে।

আইনে বলা হচ্ছে, অপরাধী যদি কারাবন্দি থাকেন তবে তাকে তখন এই ইনজেকশন দেয়া হবে না। তবে প্যারোলে ছাড়া পাওয়ার পর তার শরীরে ইনজেকশন পুশ করা হবে। আর অপরাধী যদি কোনো কারণে ইনজেকশন নিতে রাজি না হয়, তাহলে আজীবন তাকে কারাগারে থাকতে হবে ৷ মৃত্যুর আগ পর্যন্ত কোনোভাবেই ছাড়া পাবেন না।

২০১৬ সালে ইন্দোনেশিয়ায় যৌন নির্যাতনের দায়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের রাসায়নিক উপাদান ব্যবহারের মাধ্যমে নপুংসক করা হবে বলে ডিক্রি জারি করা হয়। সে বছরের ১৯ অক্টোবর দেশটির প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো এই ডিক্রিতে স্বাক্ষর করেন।