Search
Close this search box.
Search
Close this search box.

যিনি বাঁচালেন তাকেই পেটালেন ছাত্রলীগের দুই কর্মী

cu
ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) এক নিরাপত্তা কর্মীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে শাখা ছাত্রলীগের দুই কর্মীর বিরুদ্ধে। গাড়ির সঙ্গে ধাক্কা এড়াতে ছাত্রলীগের দুই কর্মীকে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলে শিমুল দে নামে এক নিরাপত্তা কর্মী মারধরের শিকার হন বলে জানা গেছে।

chardike-ad

সোমবার দুপুর দেড়টায় বিশ্ববিদ্যালয় জিরো পয়েন্ট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এসময় পাশে থাকা এক পরীক্ষার্থীকেও আঘাত করে তারা। মারধরের ঘটনায় অভিযুক্ত দুই ছাত্রলীগ কর্মী হলেন অর্থনীতি বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের লোকমান হোসেন এবং আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের কনক সাহা জয়।

তারা বগিভিত্তিক উপ-গ্রুপ একাকারের কর্মী এবং চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সাধরণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের অনুসারী। এর আগে প্রক্টর অফিস ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২০১৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি দুই বছরের জন্য তাদের বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, দুপুর ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্ট এলাকায় একটি গাড়ির সঙ্গে ধাক্কা এড়াতে কনক সাহাকে সরিয়ে দেয় নিরাপত্তা কর্মী শিমুল দে। কিন্তু কনক সাহা জয়কে কেন সরিয়ে দেয়া হয় এমন প্রশ্ন করে শিমুল দে কে মারধর করে কনক এবং লোকমান। এসময় পাশে থাকা এক পরীক্ষার্থীকেও আঘাত করে তারা। আহত পরীক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

মারধরের শিকার শিমুল দে সাংবাদিকদের বলেন, আমি তাদেরকে বাঁচাতে সরিয়ে দেই। আর তারাই আমাকে আঘাত করেছে।

এদিকে মারধরের কোন ঘটনা হয়নি জানিয়ে শাখা ছাত্রলীগের সাবেক উপ সাহিত্য বিষায়ক সম্পাদক এবং একাকার গ্রুপের নেতা ইমাম উদ্দিন ফয়সাল পারভেজ বলেন, তারা কর্মীর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। তাদের সঙ্গে ওই নিরাপত্তা কর্মী খারাপ ব্যবহার করে। এরপর প্রতিবাদ জানিয়েছে তারা। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর স্যার বিষয়টি সমাধান করে দিয়েছেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরী বলেন, নিরাপত্তাকর্মীরা কঠোর পরিশ্রম করে তাদের ডিউটি পালন করছে। তাদের সঙ্গে এ ধরনের আচরণ করা ঠিক নয়। মৌখিকভাবে আমরা অভিযোগ পেয়েছি। লিখিতভাবে পেলে আমরা ব্যবস্থা নেব।