cosmetics-ad

সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় আমরা খুবই মর্মাহত : পাপন

shakib

সাকিব আল হাসান শাস্তি পেতে যাচ্ছেন। জানা গিয়েছিল, ১৮ মাসের। তবে জানা গিয়েছিল, সাকিব আপিল করলে সেটা হয়তো ৬ মাসে নেমে আসতে পারে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আইসিসি ২ বছরের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। যদিও ১ বছরের নিষেধাজ্ঞা কমানো হয়েছে আইসিসি থেকেই।

আইসিসি নিষেধাজ্ঞা ঘোষণার এক ঘণ্টা সময়ের মধ্যেই সাকিব আল হাসানকে নিয়েই মিডিয়ার সামনে হাজির হলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। প্রথমে কথা বলেন সাকিব আল হাসান। এরপর কথা বলেন, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। যদিও সাংবাদিকদের কোনো প্রশ্নের সুযোগ দেয়া হয়নি।

নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘ সাকিবের এই নিষেধাজ্ঞার ঘটনায় আমরা খুবই মর্মাহত। সাকিবের মত খেলোয়াড় আর কখনও পাবো কি না সন্দেহ। সে বিশ্বসেরা একজন খেলোয়াড়।’

সাকিব এবং মাশরাফির মত খেলোয়াড় আর কখনো পাবেন না জানিয়ে পাপন বলেন, ‘সাকিব খেলতে পারবে না এটাই আমার জন্য অনেক বড় বিস্ময়কর ব্যাপার। আমি বারবার বলেছি যে, দুটো প্লেয়ারের বিকল্প আমাদের নেই। একজন ক্যাপ্টেন মাশরাফি আরেকজন খেলোয়াড় সাকিব। সবার বিকল্প পেলেও সাকিবের মত খেলোয়াড় আমরা আর পাব না।’

বিসিবি সভাপতি এসব ঘটনায় অনেক রাগ করেছিলেন। তবে প্রকাশ করেননি। তিনি বলেন, ‘আমি অনেক রাগ হয়েছি। যদিও প্রকাশ করিনি। কারণ সাকিব কেন আগে বলেনি। তবে এটাও আমি বলতে চাই, এটা জেনে আমরা খুশি যে, সাকিব পুরোপুরি সহযোগিতা করেছে অ্যান্টি করাপশন ইউনিটের সঙ্গে থেকে।’

সাকিব না থাকার কারণে বাংলাদেশ ক্রিকেটের অনেক কঠিন সময় পার করতে হবে বলে জানান পাপন। তিনি বলেন, ‘আমাদের সামনে গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ। এই সিরিজ নিয়ে আমাদের যত প্ল্যানিং, তার সবই সাকিবকে ঘিরে করা হয়েছিল। যার কারণে তাকে অধিনায়কও করা হয়েছিল। কিন্তু এখন সব ভেস্তে গেছে। সামনেও কঠিন সময় পার করতে হবে।’

সাকিবের এসব বিষয় সম্পর্কে বিসিবি কিছুই জানতো না বলে দাবি করছেন বিসিবি সভাপতি। তিনি বলেন, ‘এখানে একটি বিষয় আপনাদের ক্লিয়ার করে দেই যে, সাকিবই এটার বড় স্বাক্ষী যে, আমি বা বিসিবি এই ব্যাপারে কিছুই জানি না বা জানতাম না। অ্যান্টি করাপশন ইউনিট একটা আলাদা অংশ আইসিসির। ওরা সাকিবের সঙ্গেই কথা বলেছে। সাকিব আমাকে দু-একদিন আগে জানিয়েছে। ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের পরপরই সাকিব আমাকে জানিয়েছে। তাও সে কতদিনের শাস্তি পাবে, না পাবে কিছুই জানতাম না। আমাদের সঙ্গে কোনো ইন্টারেকশন হয়নি।’

তবুও পাপন জানান তারা সাকিবের পাশেই থাকবেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন, সাকিব ভালোভাবেই ফিরে আসবেন। পাপন বলেন, ‘সাকিবের অত্যন্ত খারাপ সময় যাচ্ছে। তার ভেঙে পড়ার কোনো কারণ নেই। আমরা তার পাশে আশি। তাকে সব সময় সাপোর্ট করবো। আমরা আশা করছি, খুব শিগগিরই সে ভালোভাবে ফেরত আসবে এবং আমাদেরকে আরও ভালো অবস্থানে নিয়ে যাবে।’