cosmetics-ad

অঘোষিত ফাইনালে টস জিতে বোলিংয়ে বাংলাদেশ

toss

সিরিজে ১-১ সমতা। তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে যে দল জিতবে, তারাই হাতে তুলবে সিরিজের ট্রফি। এমনই এক সমীকরণ মাথায় নিয়ে নাগপুরে মুখোমুখি বাংলাদেশ-ভারত।

দিল্লিতে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৭ উইকেটের বড় জয় তুলে নিয়েছিল বাংলাদেশ। তবে ভারত প্রতিশোধ নিয়ে নেয় পরের ম্যাচেই। রাজকোটে রোহিত শর্মার দল জেতে ৮ উইকেটে।

ফলে তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি পরিণত হয়েছে অঘোষিত ফাইনালে। নাগপুরের বিধর্ভা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মহাগুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে টস জিতেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। টস পেয়ে প্রথমে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। অর্থাৎ রোহিত শর্মার ভারত প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামবে।

ইতিহাস হাতছানি দিচ্ছে বাংলাদেশকে। ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচটি জিতলে ইতিহাস গড়বে টাইগাররা। ভারতের মাটিতে এখন পযর্ন্ত কোনো দল তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিততে পারেনি। ২০১২ সালে দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হেরেছিল টিম ইন্ডিয়া। তবে ২০১৫ সালে ভারতের মাটিতে ইতিহাস গড়ার দিকে এগিয়ে গিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু প্রথম দুই ম্যাচ জিতলেও শেষ টি-টোয়েন্টিটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হওয়ায় সেই ইতিহাস আর গড়া হয়নি প্রোটিয়াদের।

এবার সুযোগ আছে বাংলাদেশের। টাইগারদের ইতিহাস গড়ার জন্য দরকার শেষ ম্যাচে জয়। সিরিজের প্রথম ম্যাচে দিল্লীতে ৭ উইকেটের জয় পায় রাসেল ডমিঙ্গোর দল। তবে রাজকোটে দ্বিতীয় ম্যাচে ৮ উইকেটে জিতে সমতায় ফিরে ভারত। এবার সিরিজ নির্ধারণীর পালা।

বাংলাদেশের একাদশ: লিটন দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ নাঈম, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, মোহাম্মদ মিথুন, আফিফ হোসেন, আমিনুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান এবং আল আমিন হোসেন।

ভারতের একাদশ: রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, মনীষ পান্ডে, ঋষভ পান্ত, শিভাম দুবে, ওয়াশিংটন সুন্দর, যুজবেন্দ্র চাহাল, দীপক চাহার এবং খলিল আহমেদ।