Search
Close this search box.
Search
Close this search box.

দক্ষিণ কোরিয়ায় ভাজা টুথপিক খাওয়ার হিড়িক

toothpickদক্ষিণ কোরিয়ায় সম্প্রতি ভাজা টুথপিক খাওয়ার চর্চা শুরু হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওগুলোতে দেখা গেছে, কোরিয়ার নাগরিকরা এখন গরম তেলে টুথপিক ভেজে তাতে চিজ মাখিয়ে খাচ্ছেন। কেউ কেউ এই খাওয়ার ভিডিও টিকটক ও ইনস্টাগ্রামের মতো সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করছেন। কেউ আবার রান্না করে দেখিয়ে দিচ্ছেন কীভাবে এই সুস্বাদু টুথপিকভাজা বানাতে হয়। এই ভিডিওগুলো টিকটক এবং ইনস্টাগ্রামে হাজার হাজার লাইক এবং শেয়ার হচ্ছে।

chardike-ad

টুথপিক খাওয়ার এই হিড়িক দেখেই চিন্তায় পড়ে গিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রশাসন! দেশটির খাদ্য মন্ত্রণালয় বুধবার এ ব্যাপারে একটি স্বাস্থ্য সতর্কতা জারি করেছে। খাদ্য ও ওষুধ নিরাপত্তা মন্ত্রণালয় বুধবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্স- এ এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘খাদ্য হিসাবে এগুলোর নিরাপত্তা যাচাই করা হয়নি। দয়া করে (এগুলো) খাবেন না।’

মিষ্টি আলু বা কর্ন স্টার্চ থেকে তৈরি টুথপিকগুলো সবুজ রঙ করার জন্য ফুড কালার ব্যবহার করা হয়, যেগুলিকে পরিবেশ বান্ধব এবং জৈব অবচয়যোগ্য হিসাবে দেখা হয়। এই টুথপিকগুলো প্রায়শই দক্ষিণ কোরিয়ার রেস্তোঁরাগুলোতে ব্যবহৃত হয়। আঙুল দিয়ে খাবার তুলতেও এগুলো ব্যবহার করা হয়।

টুথপিকভাজাতেই মজে রয়েছেন অধিকাংশ কোরিয়ান নেটিজেন। ভাইরাল ভিডিয়োগুলিতে বিচিত্র সব ক্যাপশন রয়েছে। তাতে নেটিজেনরা জানাচ্ছেন টুথপিকভাজা খেতে বেশ মচমচে, সুস্বাদু। এমনকি টকঝাল করে রাঁধলে আঙুল চাটতে পারেন যে কেউ ।

একাধিক ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে, টুথপিক তেলে ভেজে নিয়ে খাচ্ছেন কোরিয়ানরা। অনেকে এর সঙ্গে সিজনিং-এর জন্য পাউডারড চিজ রাখছেন। আবার কেউ কেউ টুথপিক রঙবেরঙের করে তুলতে এতে সবুজ রঙও মেশাচ্ছেন। ভাজার পর কেমন দেখতে লাগছে টুথপিক? ভাইরাল হওয়া ছবিতে দেখা গিয়েছে, এগুলি বাচ্চাদের প্রিয় ফ্রায়েড লম্বা চিপসের মতো দেখতে। যা দেখলে জিভে জল আসা খুব অস্বাভাবিক নয়। তবে হ্যাঁ, এটি খেয়ে পেট খারাপের আশঙ্কাও রয়েছে। তেমনটাই ইঙ্গিত করেছে দক্ষিণ কোরিয়ার খাদ্যসুরক্ষা মন্ত্রক।