cosmetics-ad

কাতারে পণ্যবাহী ২০০ কার্গো বিমান পাঠিয়েছে তুরস্ক

qatar-turkey

দোহার সঙ্গে প্রতিবেশি দেশগুলোর কূটনৈতিক সম্পর্কচ্ছেদের পর থেকে এখন পর্যন্ত কাতারে পণ্যবাহী ১৯৭টি কার্গো বিমান পাঠিয়েছে তুরস্ক। কাতারি নাগরিকদের দৈনন্দিন চাহিদা পূরণে তুরস্কের পণ্যবাহী কার্গো ছাড়াও ১৬টি ট্রাক ও একটি জাহাজ দোহায় পাঠানো হয়েছে। বুধবার তুরস্কের অর্থমন্ত্রী নিহাত জেবেকসি এ তথ্য জানিয়েছেন।

রাজধানী আঙ্কারায় কাতারের অর্থমন্ত্রী আহমেদ বিন জশিম আল-থানির সঙ্গে এক বৈঠকে তুরস্কের অর্থমন্ত্রী জেবেকসি বলেন, চার আরব দেশের অবরোধ সত্ত্বেও দোহার সমুদ্র ও স্থল বাণিজ্য কোনো ধরনের ঝামেলা ছাড়াই অব্যাহত আছে।

এদিকে আরব উপসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোর সঙ্গে কাতারের কূটনৈতিক সংকট সমাধানের উপায় খুঁজতে চারদিনের সফরে মধ্যপ্রাচ্যে রয়েছেন টিলারসন। সন্ত্রাসবাদে অর্থায়নের বিরুদ্ধে লড়তে মঙ্গলবার কাতারের সঙ্গে এক চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন। রাজধানী দোহায় কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের সময় তিনি ওই চুক্তিতে সই করেন।

দোহায় পৌঁছে রেক্স টিলারসন বলেন, আরব প্রতিবেশিদের সঙ্গে মাসব্যাপি চলমান কূটনৈতিক সংকটে কাতার সরকারের অবস্থান যুক্তিসঙ্গত। তিনি বলেন, আমি মনে করি কাতার তার অবস্থানে বেশ পরিষ্কার; যা অত্যন্ত যুক্তিসঙ্গত।

অন্যদিকে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কাতার এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে হওয়া চুক্তি অনুযায়ী যে তহবিল গঠিত হয়েছে তা পর্যাপ্ত নয় বলে দাবি করেছে সৌদি নেতৃত্বাধীন মধ্যপ্রাচ্যের চার দেশ। সৌদি আরব, বাহরাইন, মিসর ও সংযুক্ত আরব আমিরাত এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

গত ৫ জুন সৌদি নেতৃত্বাধীন মধ্যপ্রাচ্যের প্রতিবেশী চার দেশ কাতারের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন ও সমর্থনের অভিযোগ এনে দোহার সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে। তবে কাতার বরাবরই এ অভিযোগ ‘ভিত্তিহীন’ বলে প্রত্যাখ্যান করে আসছে।

মধ্যপ্রাচ্য সংকট সমাধানে সহায়তার লক্ষ্যে চারদিনের সফরের দ্বিতীয় দিনে কাতারে যান রেক্স টিলারসন। সেখানে তিনি কাতারের আমির ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আব্দুল রহমান আল-থানির সঙ্গে বৈঠকে বসার আগে দেশটির আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানির সঙ্গে বৈঠক করেন রেক্স টিলারসন।

এর আগে সোমবার কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ আল আহমদ আল সাবাহ ও দেশটির অন্যান্য জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসে মার্কিন এই পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বৈঠকে কুয়েতের আমির মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলেন, আমরা এই সংকট সমাধানের চেষ্টা করছি; যা শুধুমাত্র আমাদেরকেই উদ্বিগ্ন করছে না বরং পুরো বিশ্বই উদ্বিগ্ন।

সূত্র : আল-জাজিরা।