sentbe-top

আমেরিকায় হিজাব অবমাননার দায়ে স্কুল শিক্ষিকা বহিষ্কার

hijab
প্রতীকী ছবি

আমেরিকার ভার্জিনিয়ায় স্কুলের এক ছাত্রীরে হিজাব জোড়পূর্বক খুলে নেয়ায় এক শিক্ষিকাকে স্কুল থেকে বহিষ্কার করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। ওই লাঞ্ছিত স্কুল ছাত্রী গত বুধবার (১৫ নভেম্বর) তার হিজাব খুলে নেয়ার ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগে লিখেছেন, ‘আমি আমার শিক্ষিকাকে ভালবাসতাম এবং তাকে যথেষ্ট শ্রদ্ধা করতাম। অথচ তিনি আমার মাথা থেকে আমার স্কার্ফ কেড়ে নিয়েছেন।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্টটি ভাইরাল হয়ে যায়। এ ঘটনা জানাজানি হলে স্কুল কর্তৃপক্ষ ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত হলে ওই স্কুল শিক্ষিকাকে তার কর্মস্থল থেকে বহিষ্কার করা হবে বলে ঘোষণা দেয়।

পরে গত সপ্তাহে অভিযোগ প্রমাণিত হলে জড়িত ওই স্কুল শিক্ষিকাকে তার কর্মস্থল থেকে বহিষ্কার করা হয়। গত মাসে ওই স্কুলে শিক্ষিকা শাসনের অজুহাতে দ্বিতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রীর হিজাব ছিঁড়ে ফেলে এবং ধর্মের প্রতি ঘৃণা ও বিদ্বেষের বহিঃপ্রকাশ ঘটায় বলে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে ধর্ম বিদ্বেষে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

আমেরিকার মুসলিম নাগরিক অধিকারে সবচেয়ে বৃহত্তম সংস্থা ‘আমেরিকান ইসলামিক রিলেশন্স কাউন্সিল’ ঘটনা তদন্তপূর্বক অভিযুক্ত স্কুল শিক্ষিকাকে বহিষ্কার করায় ওই স্কুল কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। এ সংস্থা আরো বলেন, ‘ধর্ম অথবা নিজেদের বিশ্বাসের জন্য কোন শিক্ষার্থীর উপর হামলা চালানো ঠিক নয়। শিক্ষকদের উচিত শিক্ষার্থীদের সমর্থন করা। যেকোনো কারণে তাদের বিরক্ত অথবা ভয় দেখানো ঠিক নয়।

উল্লেখ্য যে, যুক্তরাষ্ট্রে স্কুল সংস্থা এক প্রতিবেদনে জানায়, প্রায় সময়ে হিজাবের কারণে শিক্ষকদের হাতে ছাত্রীদের লাঞ্ছিত হতে হয়। গত সপ্তাহে টেনেসি রাজ্যের ন্যাশভিল শহরের একটি স্কুলের শিক্ষিকা অনুরূপ ঘটনা ঘটিয়েছে বলেও জানা যায়।

sentbe-top