sentbe-top

সামরিক ব্যয়ে শীর্ষ দশে দক্ষিণ কোরিয়া

সামরিক ব্যয়ে শীর্ষ দশে রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। গত কয়েক দশক ধরে উত্তর কোরিয়ার সাথে যুদ্ধাবস্থার উত্তেজনা পার করেছে দেশটি। উত্তর কোরিয়ার হুমকি মোকাবেলায় প্রতিনয়ত বাড়িয়েছে সামরিক ব্যয়। সামরিক ব্যয়ে দশম অবস্থানে থাকা দক্ষিণ কোরিয়া ২০১৭ সালে ৩৯.২ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে।

স্নায়ুযুদ্ধের পর গত বছর রেকর্ড পরিমাণ বৈশ্বিক সামরিক ব্যয় বেড়েছে। ২০১৭ সালে এ খাতে বিশ্বের দেশগুলো ব্যয় করেছে প্রায় এক লাখ ৭৩ হাজার কোটি ডলার। সামরিক ব্যয়ের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও চীন।

সর্বোচ্চ ব্যয়কারী দেশের তালিকায় থাকা রাশিয়াকে পেছনে ফেলে তিন নম্বরে উঠে গেছে মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ দেশ সৌদি আরব। বুধবার সুইডেনভিত্তিক প্রতিরক্ষা গবেষণা প্রতিষ্ঠান স্টকহোম পিস রিচার্স ইন্সটিটিউট (এসআইপিআরআই) প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ চিত্র দেখা গেছে।

ফ্রান্সকে টপকে পঞ্চম স্থানে উঠে গেছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারত। তালিকায় শীর্ষ দশে এরপর রয়েছে ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, জাপান, জার্মানি ও দক্ষিণ কোরিয়া। ২০১৭ সালে এ খাতে বিশ্বের দেশগুলো প্রায় এক লাখ ৭৩ হাজার কোটি ডলার ব্যয় করেছে, যা ২০১৬ সালের তুলনায় ১.১ শতাংশ বেশি। সেনা সদস্যদের বেতন, সামরিক অভিযানের খরচ, অস্ত্র ও সরঞ্জাম ক্রয় এবং এ সংক্রান্ত গবেষণা ও উন্নয়নে এসব অর্থ ব্যয় করেছে বিশ্বের বৃহত্তম দেশগুলো।

তালিকার প্রথম স্থানে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ব্যয় গত বছরের সমান ধরে রেখেছে। দেশটি এই খাতে খরচ করেছে ৬১ হাজার কোটি ডলার। বিশ্বের মোট সামরিক ব্যয়ের ৩৫ শতাংশ ব্যয় একাই করে যুক্তরাষ্ট্র। চলতি বছর এ বিনিয়োগ আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সামরিক ব্যয়ের দেশ চীন গত বছর এই খাতে খরচ করেছে ২২ হাজার ৮০০ কোটি ডলার। দেশটি এ নিয়ে ২০০৮ থেকে ২০১৩ সালের মধ্যে দ্বিগুণ সামরিক ব্যয় বাড়িয়েছে।

সামরিক ব্যয়ে রাশিয়াকে টপকে তৃতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে সৌদি আরব। মজুদ শেষ হয়ে আসায় তেল নির্ভরতা কমানোর লক্ষ্য নিয়ে গত বছর রিয়াদে অনুষ্ঠিত এক বিনিয়োগ সম্মেলনে মধ্যপন্থী ইসলামী মতাদর্শের দিকে ধাবিত হওয়ার পরিকল্পনার কথা জানান সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী ইরানকে মোকাবিলা করে নিজেদের প্রভাব বাড়াতে সামরিক ব্যয় বাড়াতে থাকে দেশটি। সুইডেনভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি বলছে, গত বছর দেশটি সামরিক খাতে ৬ হাজার ৯৪০ কোটি ডলার ব্যয় করেছে। আর রাশিয়া এই খাতে ৬ হাজার ৬৩০ কোটি ডলার ব্যয় করে চার নম্বরে নেমে গেছে।

পঞ্চম স্থানে উঠতে গত বছর ভারত সামরিক খাতে ব্যয় করেছে প্রায় ৬ হাজার ৪০০ কোটি ডলার। ষষ্ঠ স্থানে থাকা ফ্রান্সের খরচ ৫ হাজার ৭৪০ কোটি ডলার। সপ্তম স্থানের যুক্তরাজ্যের ব্যয় ৪ হাজার ৭২০ কোটি ডলার। ৪ হাজার ৫৪০ কোটি মার্কিন ডলার খরচ করে জাপানের অবস্থান আট নম্বরে। ৪ হাজার ৪৩০ কোটি ডলার ব্যয়ে জার্মানি নয় নম্বরে। তালিকার ১০ নম্বরে আছে এশিয়ার আরেক দেশ দক্ষিণ কোরিয়া। গত বছর তাদের ব্যয় ৩ হাজার ৯২০ কোটি মার্কিন ডলার।

এসআইপিআরআই প্রকাশিত নতুন প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০১৭ সালে বিশ্বের মোট সামরিক ব্যয়ের ৫২ শতাংশ করেছে ইউরোপের সামরিক জোট ন্যাটোভুক্ত ২৯টি দেশ। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, রাশিয়ার হুমকি বাড়তে থাকায় মধ্য ও পশ্চিম ইউরোপীয় দেশগুলোতে এ বছরে সামরিক ব্যয় যথাক্রমে ১২ ও ১.৭ শতাংশ হারে বেড়েছে। এক বিবৃতিতে এসআইপিআরআইয়ের চেয়ারম্যান জ্যান এলিসন বলেন, সামরিক খাতে এই বিপুল ব্যয় বৃদ্ধি মারাÍক উদ্বেগ তৈরি করছে। বিশ্বজুড়ে সংঘাতের শান্তিপূর্ণ সমাধান খোঁজাকে ব্যাহত করবে এই ব্যয় বৃদ্ধি।

sentbe-top