sentbe-top

অনাকাঙ্ক্ষিত ফেসবুক পোস্ট বেদনার কারণ হতে পারে

১৫ ডিসেম্বর ২০১৩, সিউল:

অনাকাঙ্ক্ষিত পোস্ট বিব্রতকর অবস্থার পাশাপাশি গ্রাহকের দীর্ঘস্থায়ী বেদনার কারণ হতে পারে। সম্প্রতি নর্থওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয় তাদের এক সমীক্ষায় এ ধরনের তথ্য প্রকাশ করে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।Facebook-trouble

শীর্ষ সামাজিক যোগাযোগ সাইট ফেসবুক গ্রাহকরা তাদের প্রিয়জনদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষার পাশাপাশি নিজেদের অভিব্যক্তি প্রকাশের জন্যও ব্যবহার করে থাকেন। এর মাধ্যমে গ্রাহকরা তাদের মনের বিভিন্ন অবস্থা তাদের বন্ধুদের জানাতে পারেন। কিন্তু অনাকাঙ্ক্ষিত পোস্ট গ্রাহকের হতাশার কারণ হতে পারে বলে জানিয়েছেন নর্থওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা।
বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ফেসবুকের গ্রাহকদের ওপর এক জরিপ চালিয়ে এ তথ্য প্রকাশ করেন। তারা জানান, গত ছয় মাসে ১৬৫ জন গ্রাহকের মধ্যে মাত্র ১৫ জন ফেসবুকের পোস্টের কারণে কোনো ধরনের হতাশার শিকার হননি।

বিশ্লেষকদের মতে, অনাকাঙ্ক্ষিত পোস্ট মানুষের মনে হতাশার জন্ম দেয়। সাধারণত বন্ধুর ব্যাপারে কোনো খারাপ সংবাদ শুনলে অন্য বন্ধুর খারাপ লাগে। কোনো বন্ধু যদি অনাকাঙ্ক্ষিত কোনো পোস্ট দেয় তার ফল ওই গ্রাহকের পাশাপাশি তার বন্ধুদের ওপরও প্রভাব ফেলে।

জরিপে অংশগ্রহণকারীদের গত ছয় মাসে ফেসবুকে তাদের বিভিন্ন নেতিবাচক অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করতে বলা হয়। অংশগ্রহণকারীরা তাদের নেতিবাচক অভিজ্ঞতার যেসব তথ্য তুলে ধরেন তার মধ্যে অন্যতম ছিল অনাকাঙ্ক্ষিত পোস্টের কারণে হতাশ হওয়া। বিশ্লেষকদের মতে, এ ধরনের হতাশা দীর্ঘস্থায়ী হয়। এর ফলে গ্রাহকের ব্যক্তিজীবনেও ব্যাপকভাবে এর প্রভাব পড়ে।
অংশগ্রহণকারীদের বয়স, ব্যক্তিত্ব ইত্যাদির ওপর ভিত্তি করে তাদের অভিজ্ঞতাকে আলাদাভাবে বিবেচনা করা হয়েছে বলে জানান নর্থওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। বিশ্ববিদ্যালয়টির গবেষক জেরেমি বার্নহোজ বলেন, প্রায় প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীই গত ছয় মাসে তাদের বিভিন্ন হতাশাব্যাঞ্জক ঘটনার কথা উল্লেখ করেছেন। তাদের অধিকাংশই অনাকাঙ্ক্ষিত পোস্টের কারণে হতাশার শিকার হয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা এ ধরনের পরিস্থিতিতে গ্রাহকদের আবেগ দেখার জন্য আগ্রহী ছিলাম। কিন্তু আশ্চর্যের ব্যাপার হলো অনাকাঙ্ক্ষিত পোস্ট খুব সাধারণ ব্যাপার হলেও গ্রাহকদের মধ্যে এর প্রভাব দীর্ঘস্থায়ীভাবে পড়ে।’

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, অনাকাঙ্ক্ষিত পোস্টের কারণে অনেকেই দীর্ঘস্থায়ী হতাশা ও বেদনার শিকার হচ্ছেন। তাই গ্রাহকদের এ ধরনের পোস্ট দেয়া থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ করেছেন তারা। জরিপ সংশ্লিষ্টদের মতে, এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত পোস্ট খুব কাছের কোনো বন্ধুর পক্ষ থেকে খুব কমই আসে। এক্ষেত্রে যারা ফেসবুকের বিভিন্ন সেটিংস সম্পর্কে ভালোভাবে অবগত, তারা এ ধরনের সমস্যায় খুব কমই পড়েন। বার্নহোজ বলেন, ‘অনেক গ্রাহকই ফেসবুকের অনেক সেটিংস সম্পর্কে ভালোভাবে জানেন না। এর ফলে তারা অনেক বিষয়ই এড়িয়ে যেতে পারেন না। এর ফলে তারা এ ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হন।’ তবে সাইটটির বিভিন্ন সেটিংস সম্পর্কে ভালোভাবে জানা থাকলে এ ধরনের সমস্যা এড়ানো সম্ভব বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

sentbe-top