কারাগার থেকে বাসায় ফিরলেন কণ্ঠশিল্পী আসিফ

asifতথ্যপ্রযুক্তি আইন ও প্রতারণার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় জামিন পেয়েছেন কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবর। কেন্দ্রীয় কারাগারে তার জামিন আদেশ পৌঁছানোর পর বিকেল সাড়ে ৪টার মধ্যে ছাড়া পান তিনি। এরপর স্ত্রী সালমা আসিফসহ কাছের মানুষদের নিয়ে নিজ বাসভবনের দিকে যাত্রা করেন।

ঈদের আগে আসিফ আকবরের মুক্তি নিয়ে সংশয়ে ছিলেন তার পরিবার-পরিজন ও ভক্তরা। তবে সেই সংশয় কেটে গেছে। কারা জীবন থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে আবারও সবার মাঝে ফিরে এসেছেন তিন। তার ফিরে আসার আনন্দে ভাসছে ফেসবুক।

শফিক তুহিনের করা মামলায় ১০ হাজার টাকা মুচলেকা দিয়ে জামিন পেয়েছেন কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবর। মামলায় পুলিশ প্রতিবেদন দাখিল করার আগ পর্যন্ত এ জামিন বহাল থাকবে। সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম কেশব রায় তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করে এ আদেশ দেন।

এর আগে গত মঙ্গলবার (৫ জুন) দিনগত রাত দেড়টায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) একটি টিম কণ্ঠশিল্পী আসিফকে তার অফিস থেকে গ্রেফতার করে। সুরকার ও কণ্ঠশিল্পী শফিক তুহিন কর্তৃক তেজগাঁও থানার দায়ের করা তথ্যপ্রযুক্তি আইন ও প্রতারণার একটি মামলায় (মামলা নম্বর ১৫) তাকে গ্রেফতার করা হয়।

প্রসঙ্গত, কুমিল্লার ছেলে আসিফ আকবর ছেলেবেলা থেকেই ক্রিকেট ও গানকে সঙ্গী করে চলেছেন। নানা কারণে ক্রিকেটের সঙ্গে দূরত্ব ঘটলেও গানকে তিনি জীবনের পাথেয় করে নিয়েছেন। সেই গান আসিফ আকবরকেও দিয়েছে দুই হাত ভরে। ২০০১ সালে প্রকাশিত তার প্রথম সংগীত অ্যালবাম ‘ও প্রিয়া তুমি কোথায়’ দিয়ে বাজিমাত করে দেন তিনি। এক অ্যালবাম দিয়েই বনে যান সুপারস্টার।

যদিও তারও আগে ১৯৯৭ সালে মুক্তি পাওয়া ‘রাজা নাম্বার ওয়ান’ ছবিতে ‘আমারই ভাগ্যে তোমারই নাম’ গান দিয়ে যাত্রা করেছিলেন তিনি। তবে পরবর্তীতে অডিও এবং চলচ্চিত্রেও জনপ্রিয়তার শীর্ষস্থানে পৌঁছে দিয়েছেন নিজের নাম। মাঝখানে দীর্ঘ আট বছর ছিলেন না গানে নানা অভিমানের জন্য। তবে নতুন করে ফিরে স্বভাবজাত তাক লাগিয়ে দিয়েছেন আসিফ। এখনো তিনিই সবার সেরা, শ্রোতা ও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের চাহিদায়।