sentbe-top

ফেসবুকে আসছে সামাজিক সংবাদপত্র পেপার

সিউল, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৪:

‘পেপার’ নামের একটি নতুন অ্যাপ্লিকেশন চালুর ঘোষণা দিয়েছে ফেসবুক। এতে গ্রাহকরা স্মার্টফোনের মাধ্যমে বিশ্বের সেরা সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন দেখতে ও শেয়ার করতে পারবে। আগামীকাল গ্রাহক পর্যায়ে অ্যাপটি চালু করা হবে। খবর এএফপির।

ফেসবুকের পক্ষ থেকে জানানো হয়, নতুন এ অ্যাপ্লিকেশন একটি প্রতিবেদনকে স্মার্টফোনের পর্দাজুড়ে আরো আকর্ষণীয় নকশা ও আরামদায়ক লে-আউটের মাধ্যমে উপস্থাপন করবে। গ্রাহকের ভালো গল্পগুলো শেয়ার করার জন্য এটাকে সহজ করে তৈরি করা হয়েছে। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, অ্যাপ্লিকেশনটি তাদের ক্রিয়েটিভ ল্যাবের প্রথম কাজ। আগামীকাল থেকে প্রাথমিকভাবে আইফোন ব্যবহারকারীরা এ সুবিধা পাবে। খাদ্য, খেলাধুলা, বিজ্ঞানসহ যেকোনো বিষয়ের সংবাদ শিরোনামগুলো গ্রাহকদের পছন্দ অনুযায়ী অনুসরণ করার সুযোগ থাকবে।

Facebook-troubleফেসবুকের ব্লগ পোস্ট থেকে জানা গেছে, প্রত্যেকটি বিভাগের সংবাদই প্রকাশ করা হবে বিখ্যাত সংবাদমাধ্যমগুলো থেকে। এখন পর্যন্ত কোনো নাম ঘোষণা করা না হলেও ফেসবুকের এক ভিডিওতে দেখা গেছে, তাদের এক গ্রাহক ‘দ্য নিউইয়র্ক টাইমস’, ‘টাইম ম্যাগাজিন’, ‘ইউএসএ টুডে’, ‘দ্য হাফিংটন পোস্ট’ ইত্যাদি প্রকাশনার প্রতিবেদনগুলো স্ক্রল করছে। এতে আরো জানানো হয়, প্রতিবেদনগুলো ভালোভাবে দেখার জন্য প্রয়োজনীয় সব সুবিধাই থাকবে। স্মার্টফোন সেটটি যেকোনো দিকে কাত করে খুব সহজেই ভালো মানের ছবি স্পষ্টভাবে দেখা যাবে। এছাড়া লেখাও অনায়াসে পড়া ও শেয়ারের সুযোগ থাকবে।

অ্যাপ্লিকেশনটির ফলে ফোনের পর্দাজুড়েই ভিডিও দেখা যাবে। সেখানে বিখ্যাত প্রকাশনাগুলোর লেখা সহজেই বেছে নেয়ার ব্যবস্থা থাকবে। মজার বিষয় হলো, কেউ যখন প্রতিবেদনটি শেয়ার করার চিন্তা করবে, তখন পোস্ট করা ছবিটি কেমন হবে, সেটা উপস্থাপনের আগেই দেখার সুযোগ থাকবে।

দশম জন্মদিনে ফেসবুক: চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে দশম বছরে পা রাখল ফেসবুক। ২০০৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে মার্ক জাকারবার্গের হাত ধরে যাত্রা শুরু এ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটির। ফেসবুকের নয় বছর পূর্তিতে বেড়ে গেছে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম। এর পেছনে বড় ভূমিকা রেখেছে তাদের মোবাইল বিজ্ঞাপন কৌশল। শেয়ারের মূল্য ১৬ শতাংশ বেড়ে যাওয়ায় শুধু ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গই এ সপ্তাহে উঠিয়ে এনেছেন ৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আগের মতো দ্রুত হারে গ্রাহক বাড়ছে না। কিন্তু এর পরও ফেসবুকের আয় কমছে না। গ্রাহক বৃদ্ধিতে বড় ছন্দপতন হলেও ফেসবুকের আয় বৃদ্ধির গতি অব্যাহত রয়েছে। এ সপ্তাহেই জাকারবার্গ টিমের প্রতিবেদনে দেখা গেছে, বছরে তাদের আয় বেড়েছে ৬৩ শতাংশ।

মোবাইলে ফেসবুকের প্রথম দিকের কার্যক্রম বিনিয়োগকারীদের আকর্ষণ করতে পারেনি। ধারণা করা হচ্ছিল, ফেসবুক তাদের মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনগুলো তৈরির মাধ্যমে পর্যাপ্ত পরিমাণে লাভ করতে পারবে না। কিন্তু চলতি বছরের প্রথম মাসেই এ ধারণা মিথ্যা প্রমাণ হয়। ২০১৩ সালের এক প্রান্তিকেই মোবাইল থেকে আয় বাড়ে ৪১ শতাংশ। বর্তমানে ফেসবুকের সব ধরনের বিজ্ঞাপন থেকে আয়ের ৫৩ শতাংশই আসে মোবাইল থেকে। তাই যে খাতটিকে সবচেয়ে দুর্বল মনে করা হচ্ছিল, সেটাই এখন সোনার ডিম পাড়া হাঁসে পরিণত হয়েছে।

এমনিতেই মোবাইল বিজ্ঞাপনে ফেসবুকের আধিপত্য এখন চোখে পড়ার মতো। তার ওপর স্মার্টফোনে তাদের নতুন অ্যাপ্লিকেশন ‘পেপার’-এর ঘোষণা দেয়ায় বিনিয়োগকারীদের আত্মবিশ্বাস বেড়ে গেছে। ফেসবুকের উত্তরোত্তর উন্নতির সময়ে তাই বিনিয়োগকারীদের পিছিয়ে যাওয়ারও কোনো কারণ নেই।

sentbe-top