cosmetics-ad

টুইন টাওয়ার হামলায় আক্রান্ত নারীর ইসলাম গ্রহণ

accept-islam

৩৯ বছরের নারী কর্ডস্মাথ ডানি। উত্তর আমেরিকার নিরাকাগুয়ার অধিবাসী। সম্প্রতি তিনি তার স্বামীকে নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের ইসলামিক কালচারাল সেন্টারে এসে পবিত্র ধর্ম ইসলাম গ্রহণ করেছেন। ইসলাম গ্রহণ করে নিজ নাম রেখেছেন ‘আলিয়া মেন্দোজার’ আর স্বামীর নাম রেখেছেন ‘আব্দুল্লাহ মেন্দোজার’। খবর দ্য ন্যাশনাল। ইসলাম গ্রহণকারী এ নারীর রয়েছে নিজস্ব কোম্পানি। কোম্পানির নাম মেন্দোজার। এ নামেই তারা প্রসিদ্ধ।

আমেরিকার টুইন টাওয়ারে ৯/১১-এর হামলার সময় এ নারী বিমানে যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামিতে সফরে বের হয়েছিলেন। হামলার পর বিমানটি নিকারাগুয়ায় ফেরত আসে। ইসলাম গ্রহণের পর যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক আলিয়া মেন্দোজার বলেন, ‘ইসলাম গ্রহণ করার পর আমরা অনেক সম্মানিত। ধর্মান্তরিত ব্যক্তি হিসেবে আমাদের ডাকা হয় না।’

আলিয়া মেন্দোজার ধর্ম গ্রহণের পর বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ওই কথার পুরোপুরি মিল খুঁজে পান। বিশ্বনবি বলেছেন, ‘প্রত্যেক ব্যক্তিই মুসলিম হিসেবে জন্ম গ্রহণ করেছিলো। পরে বাবা-মায়ের কারণে কেউ ইয়াহুদি কিংবা খ্রিস্টান হয়েছে।’

আলিয়া মেন্দোজার তার প্রথম কালেমা পাঠের স্মৃতি চারক করে বলেন, ‘আমার মনে আছে সেই সব ‘হাঁসিমুখ’-এর কথা। যারা আমার দিকে ইতিবাচক দৃষ্টিতে তাকিয়েছিল। কালেমা পাঠের পর আমি নিজেকে সব মুসলিমের অংশ হিসেবে মনে করতে থাকি।

আলিয়া মেন্দোজার আরো বলেন, ‘ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতে আমার মাত্র তিন মিনিট সময় লেগেছিল। আর এ তিন মিনিট সময় চিরদিনের জন্য আমার জীবনে পরিবর্তন এনে দিয়েছে।’

উল্লেখ্য যে, দুবাই ইসলামিক কালচারাল সেন্টারে প্রতি মাসেই অনেক অমুসলিম ইসলাম গ্রহণ করছেন। তারা আধার থেকে পাড়ি জমাচ্ছেন আলোতে। মিথ্যা থেকে সথ্যের পথে। ইসলামিক কালচারাল সেন্টারে এ কার্যক্রমে অনেক মানুষই দেখছেন ইসলামের সুমহান আলোর পথ।