শ্রীলঙ্কা সফরে তাহলে কোচ কে?

team-bangladeshবিশ্বকাপ এখনও শেষ হয়নি। সেমিতে উঠতে না পারার কারণে ইতিমধ্যেই দেশে ফিরে এসেছেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। বিশ্বকাপের এতবড় একটি ধকল কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই টাইগারদের সামনে হাতছানি দিচ্ছে আরেকটি সিরিজ। শ্রীলঙ্কা সফর। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে চলতি মাসেরই ২৩ তারিখ শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো যাওয়ার কথা বাংলাদেশ দলের।

স্বাগতিকদের সঙ্গে ২৬, ২৮ এবং ৩১ জুলাই কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটি খেলবে বাংলাদেশ দল। কিন্তু একেবারে দরজায় কড়া নাড়তে থাকা এই সিরিজের আগ মুহূর্তে এভাবে হঠাৎ করে প্রধান কোচ স্টিভ রোডসকে ‘না’ বলে দেয়ার পর প্রশ্ন উঠে গেছে, কার অধীনে তাহলে শ্রীলঙ্কা সফরে যাবে বাংলাদেশ দল?

এদিকে যেহেতু দুই বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ এবং সুনিল জোসির সঙ্গেও চুক্তি নবায়ন করছে না বিসিবি এবং ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি ব্যক্তিগত কারণে শ্রীলঙ্কা সফরে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে যাচ্ছেন না, সে কারণে প্রশ্নটা আরও বড় হয়ে দেখা দিয়েছে। কাকে অন্তত অন্তর্বর্তীকালীন কোচ নিয়োগ করা হবে?

হাওয়ায় ভাসছে বাংলাদেশের সাবেক কোচ শ্রীলংকার হাথুরুসিংহেকে আবারও দায়িত্ব দেয়া হতে পারে। সেটা না হলে স্থানীয় কাউকে; কিন্তু বিসিবির এক প্রভাবশালী পরিচালক বলেছেন, ‘আপাতত রোডসকে না রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এরপর কি হবে তা এখনো চূড়ান্ত নয়।’

কিন্তু শ্রীলঙ্কা সিরিজ যখন একেবারে দোরগোড়ায়, তখন একজন পূর্ণকালীন কোচ নিয়োগ দিয়ে সেখানে পাঠানো প্রায় অসম্ভব একটি ব্যাপার। এ কারণে বোর্ডের অভ্যন্তরে ভাবা হচ্ছে কয়েকটি বিকল্প।

এর আগে হাথুরুসিংহে পদত্যাগের পরও একটা সিরিজে অন্তর্বর্তীকালীন কোচ ছিলেন জাতীয় দলের ম্যানেজার এবং পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন। এবারও কি তিনি অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হবেন নাকি অন্য কাউকে দায়িত্ব দেয়া হবে?

তবে শোনা যাচ্ছে, চুক্তি বাতিল করে দেয়ার পরও ঠেকা কাজ চালানোর জন্য স্টিভ রোডসকেও বলে-কয়ে রাজি করানো হতে পারে, আপাতত এই সিরিজটা দায়িত্ব পালন করে যাওয়ার জন্য। না হয় অন্তর্বর্তীকালীন সময়ে অন্য কাউকেও দায়িত্ব দেয়া হতে পারে। কিংবা এর মধ্যেই নতুন কোচ নিয়োগ। তবে এসবের কোনটা হয় সেটাই দেখার এখন।