cosmetics-ad

ইতিহাস গড়ে বিশ্বকাপে থাইল্যান্ডের মেয়েরা

thailand-women

দিনের শুরুতে আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলা নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। এরপর দিনের শেষভাগে পাপুয়া নিউগিনিকে হারিয়ে প্রথমবারেরমত নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে তাইল্যান্ডের মেয়েরা। আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

স্কটল্যান্ডের ফোর্টহিলের ডানবিতে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে পাপুয়া নিউগিনিকে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে থাইল্যান্ড। প্রথমে ব্যাট করে থাইল্যান্ডের মেয়েদের সামনে কেবল ৬৮ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিতে পেরেছিল পাপুয়া নিউগিনি। ১৫ বল এবং ৮ উইকেট হাতে রেখেই সহজে ম্যাজ জয় করে নেয়া থাই নারী ক্রিকেট দল। নারুয়েমল চাওয়াই সর্বোচ্চ ৩২ রান করেন। এছাড়া নাত্তাকাম চান্তাম করেন ১৮ রান, নাত্তাপাত কনচারেনকাই অপরাজিত থাকেন ১৬ রান করে।

থাই নারীদের রূপকথার শুরু কিন্তু চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে শুরু হয়। যেখানে বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে খেলার জন্য তাদেরকে খেলতে হয় এশিয়ান কোয়ালিফায়ারে। নিজ দেশে অনুষ্ঠিত সাত দেশের ওই টুর্নামেন্ট জিতে নেয় তারা। শুধু তাই নয়, গত বছর জুলাই থেকে শুরু করে এ বছর আগস্ট পর্যন্ত টানা ১৭টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জিতে রেকর্ড গড়ে থাই মেয়েরা।

ফোর্টহিলে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় পাপুয়া নিউগিনি। ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ৬৭ রান করে তারা। সর্বোচ্চ ১৬ রানে অপরাজিত থাকেন কাইয়া আরুয়া। ১৩ রান করেন সিবোনা জিমি।