cosmetics-ad

দেশে ফিরেছেন মালয়েশিয়ায় আটকেপড়া ১৫৪ বাংলাদেশি

airport

চলমান মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে মালয়েশিয়ায় আটকেপড়া ১৫৪ জন বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। কোভিড-১৯ টেস্ট সনদ নিয়ে বুধবার (১৩ মে) দেশটির স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় মালিন্দো এয়ারের একটি বিশেষ ফ্লাইটে দেশে ফেরেন। তারা সবাই করোনা নেগেটিভ বলে জানা গেছে।

গতমাসের প্রথম দিকে (১ মে) হাইকমিশনের ফেইসবুক পেইজে নোটিশের মাধ্যমে আটকেপড়াদের তথ্য সংগ্রহ করে উভয় দেশের সরকারের অনুমতি, সিভিল এভিয়েশনের অনুমতি, প্রত্যেকের পুলিশ রিপোর্ট, কোভি- ১৯ টেস্ট রিপোর্ট, হাইকমিশন থেকে পত্র ইস্যু করাসহ বিভিন্ন ধরনের কার্যাদি সম্পন্ন করা হয়। বুধবার সকালে হাইকমিশনের প্রথম সচিব পলিটিক্যাল রুহুল আমিন এবং লেবার কাউন্সেলর (২) মো হেদায়েতুল ইসলাম মন্ডল বিমান বন্দরে উপস্থিত থেকে সবাইকে সহযোগিতা করেন।

মালয়েশিয়া সরকার মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার জারি করে ১৮ মার্চ এবং বাংলাদেশের সাথে বিমান চলাচল বন্ধ করে। বাংলাদেশেও দেশের ভেতরে করোনা আক্রান্ত দেশ হতে আগত বিমান অবতরণ বন্ধ করে। ফলে মাত্র ত্রিশ দিনের ভিজিট ভিসায় আসা বিদেশি নাগরিকরা দেশে ফিরে যেতে পারেননি।

অপরদিকে অফিস, কল, কারখানা, মার্কেট বন্ধ এবং চলাচল কঠোর নিয়ন্ত্রণের ফলে যার যার আবাস স্থলে অবস্থান করেন। এমন দুরবস্থার মধ্যে দিন কেটে যেতে থাকে। দেশে থাকা পরিবারের সদস্যরা ছিলেন দুশ্চিন্তাগ্রস্ত। হাইকমিশনের এ ব্যবস্থার ফলে মনের মধ্যে করোনা আশঙ্কা থাকলেও তাদের ঘর ফেরা যেন ঈদের আগেই ঈদ এলো পরিবারে।

মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশন মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার শেষ হবার ১৪ কর্মদিবসের মধ্যে কোনোরকম জরিমানা বা শাস্তি ছাড়াই সরাসরি মালয়েশিয়া ত্যাগ করার সুযোগ দিয়েছে। এক্ষেত্রে ১ জানুয়ারির পর ভিসার মেয়াদ শেষ হতে হবে এবং কনফার্ম ফ্লাইট টিকিট থাকতে হবে। এটিও আটকেপড়া ট্যুরিস্টদের জন্য উত্তম সুযোগ বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন। পরবর্তীতে অনুরূপ ফ্লাইটের ব্যাবস্থা করা হলে আগেই অবগত করা হবে হাইকমিশনের একটি সূত্রে জানা গেছে।