sentbe-top

“নকল” টাকায় “জাল” ছবি বিক্রি

fakeএকেই বলে চোরের ওপর বাটপাড়ি৷ সম্প্রতি, স্পেনের দুই ঠগ, ১৮ শতকের বিখ্যাত শিল্পী ফ্রান্সিসকো গোইয়ার আঁকা একটি ছবি নকল করে আরব দেশীয় এক শেখকে বিক্রি করে যে ১৮ লক্ষ ডলার পায় তার পুরোটাই জাল নোট৷ সেই শেখ এবং যে দালাল এই কেনাবেচায় মধ্যস্থতা করেছিল, দুজনেই এখন বেপাত্তা৷ আর সেই দুই ঠগ এখন হাজতে৷ এই খবর ব্রিটেনের ‘দি ইন্ডিপেন্ডেন্ট’ সংবাদপত্রের৷

ঘটনার সূত্রপাত ২০০৩ সালে৷ ক্যাটালোনিয়া প্রদেশের জিরোনা শহরের দুই ভাই সেই সময় গোইয়ার আঁকা এক স্পেনীয় শিল্পী আন্তোনিও মারিও এসকিভেলের একটি প্রতিকৃতি কেনে৷ ছবিটির মাপ ছিল ৮০ সেন্টিমিটার x ৬০ সেন্টিমিটার৷ তারা ভেবেছিল, ছবি এবং তার সঙ্গে পাওয়া প্রামাণ্য শংসাপত্র, দুটোই খাঁটি৷ কিন্তু বিশেষজ্ঞরা ছবিটিকে নকল বলে ফরমান দেওয়ার পর, ২০০৬ সালে জিরোনার একটি আদালত রায় দেয়, ২০,০০০ ইউরো জমা দিয়ে দুই ভাই ছবিটি গচ্ছিত রাখতে পারবে৷ ২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাসে দু’জনে ঠিক করে, সেই নকল শংসাপত্র দেখিয়েই এক আরব শেখকে ৪০ লক্ষ ডলারে ছবিটি বিক্রি করবে৷ এই ব্যাপারে তাদের ‘সাহায্য’ করে ইতালির এক ‘রহস্যময়’ দালাল৷ সে তার কমিশন বাবদ দুই ভাইয়ের কাছ থেকেই ৩,৪০,০০০ ডলার আদায় করে৷ এই অর্থ, দুই ভাই তাদের এক বন্ধুর কাছ থেকে ধার করে৷

এর পর, দু’জনে তুরিনে গিয়ে ছবির দাম হিসাবে সুইস ফ্র্যাঙ্ক নোটে ১৮ লক্ষ ডলার পায়৷ তারা যখন জেনিভার এক ব্যাঙ্কে সেই অর্থ জমা দিতে যায়, তখন ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ জানান, নোটগুলি জাল, আসল নোটের প্রতিলিপি মাত্র৷ তারা যখন সুইটজারল্যান্ড ছেড়ে চলে যাচ্ছে, ফ্রেঞ্চ অন্তঃ-শুল্ক বিভাগ তাদের মালপত্র পরীক্ষা করার সময় সেই জাল নোটগুলি দেখতে পেয়ে দু’জনকে আটক করে এবং স্পেন সরকারকে খবর দেয়৷ এরপরই, জুয়াচুরির অভিযোগে দুই ভাই গ্রেপ্তার হয়৷

শিল্পে পরাবস্তবতার পুরোধা গোইয়া আজ বেঁচে থাকলে তাঁর ছবি নিয়ে ব্যবসার এই করুণ পরিণতি দেখলে না হেসে পারতেন না৷

sentbe-top