cosmetics-ad

হিন্দুপ্রধান মরিশাসে প্রথম মুসলিম প্রেসিডেন্ট

Ameena

দ্বীপদেশ মরিশাসে ৫৪ শতাংশ লোক হিন্দু আর ৩২ শতাংশ খ্রিষ্টান। সেই দেশে প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন দেশটির প্রখ্যাত মুসলিম বিজ্ঞানী আমিনা গারিব-ফাকিম।

বৃহস্পতিবার দেশটির পার্লামেন্ট তাকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে অনুমোদনও দিয়েছে। খবর এএফপি ও সিনহুয়ার।

খবরে বলা হয়, আমিনাকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে মরিশাসের প্রধানমন্ত্রী স্যার অনিরুদ জাগনাথ যে মনোনয়ন দিয়েছিলেন পার্লামেন্ট তা সর্বসম্মতভাবে অনুমোদন দিয়েছে।

পার্লামেন্টে আমিনা প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী অনিরুদ জাগনাথ সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি সর্বদাই পুরুষ ও নারীর সমতায় বিশ্বাসী। ঐতিহাসিক এই পরিবর্তনের অংশ হতে পেরে আমি খুবই গর্বিত। আমিনা- এই পদের জন্য যথার্থই যোগ্য।’

আমিনাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে দেশটির পার্লামেন্টের প্রথম নারী স্পিকার মায়া হনুমানজি বলেছেন, ‘মরিশাসের ইতিহাসে এটাই প্রথম ঘটনা যে, এই পদে (প্রেসিডেন্ট) আসীন হলেন কোনো একজন নারী। আনুষ্ঠানিক ওই ভোটে বিরোধীরাও তাকে সর্বসম্মতিভাবে সমর্থন জানিয়েছেন।’

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, শুক্রবার মরিশাসের ষষ্ঠ প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়েছেন আমিনা। ১৯৬৮ সালে ব্রিটেন থেকে স্বাধীনতা পাওয়া মরিশাসের প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট ৫৬ বছরের আমিনা।

২০১২ সালের জুলাইয়ে তৎকালীন ক্ষমতাসীন দল লেবার পার্টির প্রধানমন্ত্রী নাভিন রামগোলাম মনোনীত প্রেসিডেন্ট কালাশ পুরিয়াগকে গত সপ্তাহে অপসারিত করা হয়। লেবার পার্টি গত ডিসেম্বরের নির্বাচনে জাগনাথের দলের কাছে হেরে যায়।

বর্তমানে আমিনা ফিজিওথেরাপি গবেষণা সেন্টারের মহাপরিচালক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব সারে ও ইউনিভার্সিটি অব এক্সটার থেকে পড়শোনা করা আমিনা মরিশাস বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের চেয়ারপারসন। বিশ্বব্যাংকের বিভিন্ন পদেও তিনি কাজ করেছেন।