cosmetics-ad

চূড়ান্ত রায়ে মুজাহিদের ফাঁসি বহাল

mujahid

জামাত নেতা ও একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত আলী আহসান মুজাহিদের বিরুদ্ধে দেওয়া ফাঁসির রায় বহাল রেখেছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের ৪ সদস্যের বেঞ্চ এ নির্দেশনা দেন। এ বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

মুক্তিযুদ্ধকালে বুদ্ধিজীবী হত্যাসহ নানা অপরাধের অভিযোগ আছে মুজাহিদের বিরুদ্ধে।

২০১৩ সালের ১৭ জুলাই আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মুজাহিদকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়ে রায় ঘোষণা করেন। তাঁর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আনা সাতটি অভিযোগের মধ্যে পাঁচটি প্রমাণিত হয়। এরমধ্যে বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা ও সহযোগিতা এবং ফরিদপুরের সদর থানার বাকচর গ্রামে গণহত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।

২০১৩ সালের ১১ আগস্ট ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন মুজাহিদ। চলতি বছরের ২৯ এপ্রিল আপিল বিভাগে ওই আপিলের শুনানি শুরু হয়। নয় কার্যদিবস ধরে চলা শুনানির প্রথম ছয় দিন ট্রাইব্যুনালের রায় ও সাক্ষ্য-প্রমাণ উপস্থাপন করে আসামিপক্ষ। এরপর তিন কার্যদিবসে রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের পাল্টাপাল্টি যুক্তি উপস্থাপনের মধ্য দিয়ে ২৭ মে মামলার কার্যক্রম শেষ হয়। ওই দিনই ১৬ জুন রায়ের দিন ধার্য করেন আপিল বিভাগ।

রায় ঘোষণার জন্য গতকাল সোমবার আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদকে নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগার থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে আসা হয়।
অপহরণ, নিযার্তন ও হত্যাসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ৭টি অভিযোগের মধ্যে ৫টি ঘটনায় আলবদর বাহিনীর প্রধান মুজাহিদের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পায় ট্রাইব্যুনাল। এর মধ্যে ৩ টিতে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। অপর একটি অভিযোগে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং বাকী অপরাধে ৫ বছরের কারাদণ্ড দেয় ট্রাইব্যুনাল।