sentbe-top

শিগগিরই এমআরপি পাচ্ছেন দুই লাখ বাংলাদেশি

MRP-passportসংযুক্ত আরব আমিরাতে পাসপোর্ট জটিলতায় পড়া প্রায় দুই লাখ বাংলাদেশি মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) পেতে যাচ্ছেন। আগামী পাঁচ মাসের মধ্যে তাদেরকে এমআরপি দেয়ার চিন্তা করছে আমিরাতের বাংলাদেশ দূতাবাস। আমিরাতস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের এক শীর্ষ কূটনীতিক গালফনিউজকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান,  ইন্টারন্যাশনাল সিভিল অ্যাসোসিয়েশন অর্গানাইজেশন (আইসিএও) বেধে দেয়া সময়ের এখনো পাঁচ বাকি। আইসিএওর বেধে দেয়া সময়সীমা অনুযায়ী চলতি বছরের ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত এসব বাংলাদেশি তাদের হাতে লেখা পাসপোর্ট দিয়ে আমিরাতে অবস্থান ও কাজ করে যেতে পারবেন। ২৫ নভেম্বরের পর আমিরাতে তাদের অবস্থান ও কাজ করা কঠিন হয়ে পড়বে।

গালফনিউজকে এক সাক্ষাৎকারে আমিরাতের বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মাদ ইমরান বলেন, আমিরাতের বাংলাদেশ দূতাবাস ২০১১ সালের প্রথম থেকে এ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ বাংলাদেশির এমআরপি ভিসা ইস্যু করেছে। আরো প্রায় দুই লাখ বাংলাদেশির ভিসা এ পক্রিয়ার আওতাধীন রয়েছে।

তিনি বলেন, আমিরাতে সাত লাখ থেকে প্রায় আট বাংলাদেশি রয়েছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এসব বাংলাদেশির পাসপোর্ট এমআরপিতে রূপান্তরিত করা হবে। প্রায় ছয় থেকে আট সপ্তাহ লাগে একটি নতুন পাসপোর্ট ইস্যু করতে।

আমিরাতে একজন শ্রমিকের পাসপোর্ট এমআরপিতে রূপান্তরিত করতে খরচ হয় ১২৫ দিরহাম তবে অন্যান্য কাজের ক্ষেত্রে খরচ ৪০৫ দিরহাম।

মোহাম্মাদ ইমরান বলেন, যদিও আবুধাবির বাংলাদেশ দূতাবাস ও দুবাইয়ের কনস্যুলেট অফিসে প্রতিদিন প্রায় ৮০০ জনের এমআরপি তৈরির সক্ষমতা রয়েছে। তারপরও প্রতিদিন প্রায় ৫০০ জনের মতো আবেদন জমা পড়ে এ দুটি অফিসে।

তিনি বলেন, এমআরপি ছাড়া আমিরাতের ভিসা নবায়ন করেছেন হাতে লেখা পাসপোর্টধারীরা এমন অনেক শ্রমিক শেষ পর্যন্ত পড়তে পারেন যারা ।

গালফনিউজের খবরে বলা হয়, ইতিমধ্যে হাতে লেখা অনেক পাসপোর্টধারী ভীতির মধ্যে রয়েছেন। এছাড়া আমিরাতে নতুন বাংলাদেশি শ্রমিকদের এমআরপি নিয়ে আসা বাধ্যতামূলত করা হয়েছে।

sentbe-top