sentbe-top

উচ্চশিক্ষায় দক্ষিণ কোরিয়া

korean-studentসময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে সব কিছুর মতো শিক্ষা খাতেও এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন। একটা সময় উচ্চশিক্ষার সীমানাটা দেশের সীমানা পর্যন্ত থাকলেও এখন তা ছাড়িয়ে গেছে সুদূর প্রবাসে। উচ্চশিক্ষার জন্য দেশের গণ্ডি পেরিয়ে যাওয়া যেন সময়ের ব্যাপার মাত্র। উচ্চশিক্ষায় স্বপ্ন পূরণের দেশ হতে পারে দক্ষিণ কোরিয়া। কারণ দেশটির উন্নয়নের সাথে তাল মিলিয়ে সেখানকার শিক্ষার মানও অনেক উন্নত। দক্ষিণ কোরিয়ায় উচ্চশিক্ষার জন্য রয়েছে অ্যাসোসিয়েট ডিগ্রি, ব্যাচেলরস ডিগ্রি, মাস্টার্স ডিগ্রি ও ডক্টরেট প্রোগ্রামে ভর্তি হওয়ার সুযোগ। তাই উচ্চশিক্ষার জন্য নিশ্চিন্তে বেছে নিতে পারেন দক্ষিণ কোরিয়া। সেখানে বছরে দুটি সেমিস্টারে ভর্তি করানো হয়। স্প্রিং সেমিস্টার মার্চ থেকে জুন এবং ফল সেমিস্টার সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত।

ভর্তির যোগ্যতা: এইচএসসি পাস, টোফেল আইবিটি স্কোর ৭৯ থেকে ৮০ অথবা আইইএলটিএস স্কোর ৬-এর অধিক হতে হবে। এ ছাড়া কোরিয়ান ভাষায় পড়াশোনায় ইচ্ছুক হলে সেক্ষেত্রে টেস্ট অব প্রফিসিয়েন্সি ইন কোরিয়ান (টপিক) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।

উচ্চশিক্ষার বিষয়: লোক প্রশাসন, সাংবাদিকতা ও যোগাযোগ, বিবিএ, হেলথ সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট, ফুড সায়েন্স ম্যানেজমেন্ট, হোটেল ম্যানেজমেন্ট, ট্যুরিজম, ইন্টেরিয়র ডিজাইন, থিয়েটার অ্যান্ড ফিল্ম, ইঞ্জিনিয়ারিং, কোরিয়ান পেইন্টিং, ডান্স ইত্যাদি বিষয়ে এখানে পড়ানো হয়।

টিউশন ফি: সরকারি অথবা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য বছরে প্রায় ৪ থেকে ১০ হাজার ডলার টিউশন ফি দিতে হয়। প্রতি মাসে থাকা-খাওয়া বাবদ প্রায় ৩০০ ডলার খরচ হয়।

বৃত্তি: দক্ষিণ কোরিয়ায় উচ্চশিক্ষার জন্য বৃত্তি পাওয়া যায়। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও সরকারের ওয়েবসাইটসহ ইন্টারনেটে বৃত্তি সম্পর্কে জানা যাবে।

ভর্তি প্রক্রিয়া: অনলাইনে আবেদন করার সুযোগ আছে। আবেদনপত্র সেখানকার বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটেই পাওয়া যায়। আবেদন করার ৬ থেকে ৮ মাস আগে ভর্তির বিজ্ঞপ্তি পাওয়া যাবে।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র: যথাযথভাবে পূরণকৃত আবেদনপত্র, সব সার্টিফিকেট ও মার্কশিটের ইংরেজি ভার্সন, অফার লেটার, ভাষা শিক্ষার সনদ ইত্যাদির প্রয়োজন হয়।

প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য: দক্ষিণ কোরিয়ায় থাকার জন্য মেডিকেল ইন্স্যুরেন্স বাবদ প্রতিমাসে ২০-৩০ ডলার দিতে হয়। এক সেমিস্টার শেষ হওয়ার পর প্রতি সপ্তাহে ২০ ঘণ্টা পর্যন্ত কাজের অনুমতি পাওয়া যায়। তবে সেমিস্টারের বিরতির সময় কাজ করার জন্য অনুমতির প্রয়োজন হয় না।

ক্রেডিট স্থানান্তর: দক্ষিণ কোরিয়ায় উচ্চশিক্ষার জন্য ক্রেডিট স্থানান্তরের সুযোগ আছে। সেক্ষেত্রে শিক্ষারত কোর্সের অর্ধেকের কম ক্রেডিট এবং সিজিপিএ অবশ্যই বি-গ্রেড থাকতে হবে।

sentbe-top