cosmetics-ad

নাসিরের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে বাংলাদেশের জয়

nasir

নাসির হোসেনের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে তিন ম্যাচ সিরিজে ১-১ এ সমতায় ফিরলো বাংলাদেশ ‘এ’ দল। বাংলাদেশের ব্যাটিং ব্যর্থতার দিনে তিনি সেঞ্চুরি করে দলকে এনে দেন সম্মানজনক সংগ্রহ। এরপর ফিল্ডিংয়ে নেমে বাংলাদেশ ‘এ’ দল যখন ধুকছিল তখন আবার ত্রাতা হয়ে আসলেন সেই নাসির। একাই ৫ উইকেট নিয়ে ধসিয়ে দেন ভারতের ইনিংস। আর তার অলরউন্ড নৈপুণ্যেই ৬৫ রানের বড় জয় পায় বাংলাদেশ ‘এ’ দল।

বাংলাদেশ ‘এ’ দলের দেয়া ২৫৩ রানের টার্গেটে নেমে এক উইকেটে ১১৯ রান করে ফেলে ভারত ‘এ’ দল। এরপর নাসিরের ঘূর্ণি ও রুবেল হোসেনের গতির সামনে পথ হারায় ভারত ‘এ’ দল। এরপর আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি তারা।

দলীয় ৩১ রানে রুবেলের বলে মায়াঙ্ক আগারওয়াল আউট হওয়ার পর অধিনায়ক উম্মুখ চান্দ এবং মানিশ পাণ্ডে ৮৮ রানের জুটিতে চাপে পড়ে বাংলাদেশ ‘এ’। ২৮তম ওভারে অধিনায়ক চান্দকে (৫৬) ফিরিয়ে সফরকারীদের আশার আলো দেখান নাসির। এরপর পাণ্ডেকে (৩৬) বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান রুবেল। দুই সেট ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে চাপে পড়ে ভারত ‘এ’ দল।

এরপর নাসির হোসেনের জোড়া আঘাতে বাংলাদেশ দারুণভাবে ম্যাচে ফিরে আসে। বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান রায়না এবং নায়ারকে আউট করেন এই তারকা। দলীয় ১৫১ রানে সাঞ্জু স্যামসনকে বোল্ড করেন রুবেল হাসান। পরের ওভারেই ধাওয়ানকে ফেরান নাসির। এরপর কর্ন শর্মাও বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি। রুবেলের বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি।

তখনও উইকেটে ছিলেন আগের ম্যাচের দুই ভয়ঙ্কর খেলোয়াড় গুরকীরাত এবং কালারিয়া। তবে রুশ কালারিয়াকে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলে নিজের পঞ্চম উইকেট তুলে নেন নাসির। কার্যত তখনই জয় দেখতে পায় বাংলাদেশ ‘এ’ দল। এরপর আল-আমিনের বলে শেষ ব্যাটসম্যান গুরকীরাত বোল্ড হলে ৬৫ রানের জয় পায় বাংলাদেশ ‘এ’ দল।

বাংলাদেশের পক্ষে নাসির হোসেন ৩৬ রানে ৫ উইকেট পান। এছাড়া রুবেল হোসেন ৩৩ রানে ৪ উইকেট দখল করেন।

এর আগে শুক্রবার সকালে ব্যাঙ্গালোরের চিন্নাস্বোয়ামি স্টেডিয়ামে টস জিতে বাংলাদেশ ‘এ’ দলকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় ভারত ‘এ’ দল। প্রথম ওভারেই রনি তালুকদারের (০) উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে চলে যায় সফরকারীরা। তবে সৌম্য সরকার এবং এনামুল হক প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দেন। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৬০ রান করার পর রিশি ধাওয়ানের বলে সাজঘরে ফেরেন সৌম্য (২৪)। এরপর ২২ রান তুলতেই ফিরে যান অধিনায়ক মুমিনুল হক (৩), এনামুল হক (৩৪) ও সাব্বির রহমান (১)। ফলে আবার চাপে পরে বাংলাদেশ ‘এ’।

ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে লিটন দাস এবং নাসির হোসেনের ৭০ রানের জুটিতে প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। কিন্তু ৩৪তম ওভারে লিটন দাস আউট হয়ে গেলে কার্যত শেষ হয়ে যায় বাংলাদেশের বড় সংগ্রহ করার আশা। তবে এক প্রান্ত আগলে রেখে শেষ পর্যন্ত ব্যাট করে বাংলাদেশকে সম্মানজনক স্কোর তুলে দেন নাসির হোসেন। সর্বোচ্চ ১০২ রান করেন এই অলরাউন্ডার। ৮৩ বলে ১২টি চার এবং ১টি ছক্কার সাহায্যে তিনি এই রান করেন। এছাড়া লিটন দাস ৫৭ বলে ৬টি চারের সাহায্যে ৪৫ রান করেন।

ভারতের পক্ষে রিশি ধাওয়ান ৪৪ রানে ৩টি উইকেট নেন। এছাড়া কর্ন শর্মা ৪০ রানে পান ২টি উইকেট।