cosmetics-ad

নাসিরদের সিরিজ জয়ের ম্যাচ আজ

nasir

আজ রোববার ফের মাঠে নামছে বাংলাদেশ ‘এ’ ক্রিকেট দল; স্বাগতিক ভারত ‘এ’ দলের বিপক্ষে। দুই দলের মধ্যকার ৩ ম্যাচ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে ব্যাঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে। ম্যাচ শুরু বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৯টায়। ইতোমধ্যে সিরিজে একটি করে ম্যাচ জিতেছে দুই দল। ফলে শেষ ওয়ানডেটি হয়ে দাঁড়িয়েছে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচ। সিরিজ জয়ের লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামছে দল দুটি।

সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে স্বাগতিকদের কাছে বড় ব্যবধানেই হেরেছিল মুমিনুল হকের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল। গুরকিরাত সিংয়ের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে এই ম্যাচ ভারত ‘এ’ দল জিতেছিল ৯৬ রানে। তবে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে নাসির হোসেনের অলরাউন্ড পারফরম্যান্স ৬৫ রানের জয় পায় মুমিনুলবাহিনী। ম্যাচে দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরির পাশাপাশি ৫ উইকেট নিয়েছিলেন নাসির। সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচ খেলতে নামার আগে দুই দলের জন্যই দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে টপ অর্ডারের ব্যাটিং ব্যর্থতা।

প্রথম ম্যাচে মাত্র ১২৫ রান তুলতেই ভারতের টপ অর্ডারের ৫ ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফিরে গিয়েছিল। অন্যদিকে, মাত্র ৮৭ রান তুলতেই ৫ উইকেট হারিয়ে বসেছিল বাংলাদেশ ‘এ’ দল। সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও ব্যর্থতা দেখা গিয়েছে রনি তালুকদার, সৌম্য সরকার, এনামুল হক বিজয়, মুমিনুল হকদের ব্যাটে। আগের ম্যাচের মতোই এই ম্যাচেও দলের সংগ্রহে মূল ভূমিকা রেখেছেন নাসির হোসেন ও লিটন কুমার দাস। এই ম্যাচে মাত্র ৮২ রান তুলতেই সাজঘরের পথ ধরেছেন বাংলাদেশের ৫ ব্যাটসম্যান।

ভারত ‘এ’ দল অবশ্য দ্বিতীয় ম্যাচে টপ অর্ডারের কাছ থেকে তুলনামূলক ভাল সার্ভিস পেয়েছে। তবে দলটির সবচেয়ে বড় তারকা সুরেশ রায়না এই ম্যাচেও ছিলেন ব্যর্থ। রবিবার ম্যাচ খেলতে নামার আগে তাই দুই দলের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ওপরই রান করার চাপ থাকছে। সফরে বাংলাদেশের হয়ে বল-ব্যাটে নাসির হোসেনই সবচেয়ে বড় অবদান রেখেছেন এখন অব্দি। সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচেও তাই নাসিরের ঘাড়ে থাকছে বাড়তি দায়িত্ব। অবশ্য চাপের মধ্যেই তো নাসির বেশি ভাল খেলেন। দ্বিতীয় ম্যাচে দলকে জেতানোর পর বাংলাদেশ জাতীয় দলের এই তারকা অলরাউন্ডার বলেছিলেন, ‘জানি কেন; তবে দল যখন চাপে থাকে তখন ব্যাটিং করাটা বেশ ভালই উপভোগ করি আমি। অল্প রানেই ৪-৫ উইকেট পড়ে গিয়েছে; এমন পরিস্থিতিতে ব্যাট করতে বেশ ভালোই লাগে আমার।’ (বাংলাদেশের খেলা)