cosmetics-ad

দক্ষিণের প্রস্তাবে এখনও সাড়া দেয়নি উত্তর কোরিয়া

kim

একের পর এক দূরপাল্লার ক্ষেপনাস্ত্র পরীক্ষা, পারমানবিক অস্ত্র তৈরির বিপুল কাঁচামাল মজুদের খবরের মধ্যেই উত্তরের সঙ্গে সামরিক বৈঠকে বসার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে দক্ষিণ কোরিয়া।

দেশটি আগামী ২১ জুলাই বৈঠকে বসতে উত্তর কোরিয়াকে প্রস্তাব দিয়েছে। তবে প্রস্তাব দেওয়ার পরে দুই দিন হয়ে গেলেও এখনও উত্তর কোরিয়ার পক্ষ থেকে কোনো সাড়া মেলেনি।

মঙ্গলবার সিউলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মুন সাং-কিউন এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, দক্ষিণ কোরিয়ার সংলাপের প্রস্তাবের ব্যাপারে উত্তর কোরিয়ার পক্ষ থেকে কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, এ ব্যাপারে পিয়ংইয়ংয়ের সাড়া দেওয়া অনুযায়ী মন্ত্রণালয় পদক্ষেপ নেবে।

গতকাল সোমবার বিবিসির খবরে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত আনতে সক্ষম এমন ক্ষেপনাস্ত্রের সফল পরীক্ষার পরে দক্ষিণ কোরিয়া পিয়ংইয়ংকে একটি দ্বিপাক্ষিক সামরিক বৈঠকে বসার প্রস্তাব দিয়েছে।

সিউলের এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বিবিসি বলছে, প্রতিবেশি দেশটির একের পর এক ক্ষেপনাস্ত্র পরীক্ষার কারণে ওই অঞ্চলে যে উত্তেজনার দেখা দিয়েছে তা কমানোর জন্য এই বৈঠকের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। দেশটির নতুন প্রেসিডেন্ট মুনও উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সংসম্পর্ক স্থাপনে আগ্রহী।

সম্প্রতি জার্মানির বার্লিনে এক অনুষ্ঠানের জি মুন বলেছিলেন, উত্তর কোরিয়ার পারমানবিক অস্ত্রের পরীক্ষা ও ব্যবহার বন্ধে তিনি একটি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন।

এর আগে ২০১৫ সালে দুই দেশের মধ্যে সর্বশেষ বৈঠক হয়েছিল। তবে এবার উত্তর কোরিয়া দক্ষিণরে এই প্রস্তাব রাখবে কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না। কারণ সিউলের এই প্রস্তাবে এখনও কোনো সাড়া দেয়নি পিয়ংইয়ং।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী সু চো সুক জানিয়েছিলেন, বৈঠকটি হলে সেটি হবে দুই দেশের সীমন্তবর্তী উত্তর কোরিয়ার একটি বেসমরিক এলাকায়।