cosmetics-ad

চাকরি যখন ভিডিও গেম খেলা!

video-games-players

সারা দিন শুয়েবসে ভিডিও গেম খেল আর ঢের ঢের টাকা কামাও—ছোটবেলায় এ স্বপ্ন দেখেনি কে? অন্তত একবার হলেও ভিডিও গেম কনসোল হাতে নেওয়া যে কারও জন্য এটা সত্যি। এই স্বপ্নবাজ লোকজনের জন্য সুখবর। ভিডিও গেম খেলাকেই এখন পেশা হিসেবে নেওয়া যাচ্ছে। শুধু ইস্পোর্টসে ভালো করার জন্য একাডেমি গড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে একটি পেশাদার ফুটবল ক্লাব!

হেরাক্লেস আলমেলো ক্লাবই নিয়েছে এই যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত। এলেবেলে কোনো ক্লাব নয় হেরাক্লেস, ডাচ শীর্ষ লিগের নিয়মিত মুখ তারা। গত মৌসুমে লিগে দশম হয়ে ইউরোপা লিগের কোয়ালিফাইংয়ে ওঠার সুযোগ হাতছাড়া করেছে তারা। এ কারণেই কিনা, তাদের মনে হয়েছে ইস্পোর্টসে নজর দেওয়ার। তাই মূল ফুটবল দলের জন্য যেমন একাডেমি আছে, তেমনি ভিডিও গেমারদের জন্যও তারা সৃষ্টি করছে একাডেমি। প্রাথমিক ভাবে ৬ জন গেমারকে নেওয়া হয়েছে একাডেমিতে। ১৩ থেকে ১৯ বছর বয়সী এই গেমারদের প্রশিক্ষণ দেবেন ক্লাবের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ইস্পোর্টস খেলোয়াড় ব্রায়ান হেসিং। এই একাডেমির গেমাররা ক্লাবের হয়ে বিভিন্ন ইস্পোর্টস প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে। ব্যক্তিগতভাবেও তাদের সুযোগ থাকবে মূল দলে জায়গা করে নেওয়ার।

অনলাইনে গেম খেলাকে এখন পেশা হিসেবে নিচ্ছেন অনেকেই। ২০১৫ সালে বছরে সবচেয়ে সুন্দর গোল ‘ফিফা পুসকাস অ্যাওয়ার্ড’ জিতে নিয়েছিলেন ব্রাজিলের নিচু স্তরের এক ক্লাবে খেলা ওয়েন্ডেল লিরা। মেসিকে হারিয়ে পুরস্কার জেতা লিরা এর চেয়েও বেশি চমক জাগিয়েছিলেন অনলাইনে ফিফার সেরা গেমারকে হারিয়ে দিয়ে। এর কিছুদিন পরই লিরা ফুটবল থেকে অবসর নিয়েছেন অনলাইনে ফিফা খেলোয়াড় হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে। অন্যদের অনলাইনে খেলার টিপস দিতে ইউটিউবে নিজের একটি চ্যানেলও তৈরি করেছেন লিরা।

ভবিষ্যতে হয়তো ক্লাবগুলোকে টিকে থাকতে হলে শুধু মাঠে নয় ভিডিও গেমে ভালো করতে হবে। হেরাক্লেসের এভাবে গেমার একাডেমি গড়া হয়তো সে পথেই পদক্ষেপ ফেলা!