cosmetics-ad

নতুন ম্যাকগ্রা’র খোঁজ পেল অস্ট্রেলিয়া

billy-stanlake

ব্রেট লি-গ্লেন ম্যাকগ্রার যুগ শেষ হওয়ার পর একজন ভালোমানের পেসারের অভাবে ধুঁকছে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট। মাঝে অ্যান্ডি বিকেল, মিচেল জনসন কিংবা হালের মিচেল স্টার্ক এবং জন হ্যাজলউডরা এসেছেন; কিন্তু ব্রেট লি কিংবা গ্লেন ম্যাকগ্রা মানের পৌঁছাতে পেরেছেন কোন পেস বোলারটা! দীর্ঘ সময় ধরে তেমন একজন পেসারের খোঁজে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)।

অবশেষে কাংখিত সেই পেসারের খোঁজ পেয়ে গেছে অস্ট্রেলিয়ানরা। অন্তত সাবেক সফল অধিনায়ক রিকি পন্টিংয়ের কথা শুনলে সেটাই মনে হবে। ২৩ বছর বয়সী বিলি স্টেনলেক নামে এই পেসারকে ইতিমধ্যেই রিকি পন্টিং ভবিষ্যতের ‘গ্রেটেস্ট’ বলে আখ্যায়িত করে ফেলেছেন।

বিগ ব্যাশে অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্সের হয়ে খেলা এই পেসার ইতিমধ্যে ডাক পেয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি দলে। খেলেছেন ২টি ওয়ানডে এবং ৬টি টি-টোয়েন্টি। সর্বশেষ ট্রান্স তাসমান ত্রিদেশীয় ক্রিকেট সিরিজে নিয়েছেন ৬ উইকেট। তবে তিনি সবচেয়ে বেশি আলোচানায় এসেছেন একটানা বাউন্স দিয়ে যেতে পারার কারণে। সঙ্গে ছিল বলে দুর্দান্ত সুইং। প্রতিটি বলের গতিই ওঠে ১৫০ কিলোমিটারের ওপর।

অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের সহকারী কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করা রিকি পন্টিং নিবিঢ়ভাবে কাজ করছেন প্রায় ৭ ফুট উচ্চতার এই পেসারকে নিয়ে। সেখানেই তিনি খুব কাছ থেকে দেখেছেন স্টেনলেককে। এরপরই তাকে নিয়ে মিডিয়ার মুখোমুখি হয়ে পন্টিং বলেন, ‘আমি দেখতে চাই সে কতদুর যেতে পারে। অন্তত সাত ফিট লম্বা। ১৫০ কিলোমিটারেরও বেশি গতিতে বল করতে পারে। নতুন বলে দুর্দান্ত সুইং রয়েছে তার হাতে। একটাই সমস্যা হয়তো হতে পারে তার জন্য। সেটা হলো বাউন্সার দিতে খুব বেশি পছন্দ করে সে।’

দারুণ সম্ভাবনা পন্টিং দেখছেন স্টেনলেকের মধ্যে। তিনি বলেন, ‘যখন থেকে আমরা তাকে বেড়ে উঠতে দেখছি, যেভাবে তার শরীরের গঠন তৈরি হচ্ছে, উচ্চতার সঙ্গে যেভাবে ওজনের ভারসাম্য এবং প্রতিভার বিচ্ছুরণ- সব মিলিয়ে আমি তার মধ্যে সর্বকালের সেরা একজন ফাস্ট বোলারের প্রতিচ্ছবি দেখতে পাচ্ছি। এটাই তাকে অন্যদের চেয়ে আলাদা করে দিয়েছে। আমরা আশা করি, ক্রিকেট বিশ্বে সে একজনই। আমরা চাই, যেমনটি ভাবা হচ্ছে সে তেমন ক্রিকেটার হিসেবেই বেড়ে উঠবে।’

মাত্র দুটি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন স্টেনলেক। যার শেষটি আবার ২০১৫ সালে। এছাড়া খেলেছেন ৪টি লিস্ট ‘এ’ ম্যাচ। ২০১৭ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষেই প্রথম ডাক পেয়েছিলেন জাতীয় দলে। সর্বশেষ এবার ডাক পেলেন টি-টোয়েন্টি দলে।

বিগ ব্যাশে অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্সের হয়ে ১৭ ম্যাচে পেয়েছেন ১৯ উইকেট। ইকনোমি রেট ছিল ৬.৭৭। এই পরিসংখ্যানই টি-টোয়েন্টিতে তাকে অন্যতম সেরা বোলার হিসেবে প্রতিষ্ঠা এনে দিচ্ছে। আইপিএলেও খেলেছেন স্টেনলেক। গত বছর খেলেছেন তিনি রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে। এবার স্টেনলেক বিকিয়েছেন ৫০ লাখ রুপিতে, সানরাইজার্স হায়দরাবাদে। গত সপ্তাহেই কাউন্টি ক্রিকেটে ইয়র্কশায়ারের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হলেন অস্ট্রেলিয়ান এই পেসার।

জাগো নিউজ এর সৌজন্যে