sentbe-top

জার্মানির হয়ে আর খেলবেন না ওজিল

ozilহঠাৎই আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় বলে দিলেন জার্মানির তারকা মিডফিল্ডার মেসুত ওজিল। তবে বয়স বা ফর্মের কারণে নয়, বিদায়বেলায় বর্ণবাদ এবং সম্মানহানির বিষয়টি কারণ হিসেবে তুলে ধরেছেন তিনি। নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে ২৯ বছর বয়সী এই প্লে-মেকার পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, জার্মানির হয়ে আর খেলতে চান না।

জার্মানি ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (ডিএফবি) ওয়েবসাইট কিংবা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অবশ্য ওজিলের এই অবসরের বিষয়ে কোনো বিবৃতি পাওয়া যায়নি। তবে ওজিল তার এই সরে যাওয়ার জন্য ডিএফবির আচরণকেই দায়ী করেছেন। টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘আমি আর জার্মানি জাতীয় দলের জার্সি গায়ে জড়াতে চাই না। আমি বর্ণবাদ এবং অবমাননার শিকার।’
ozil

বিতর্কের সূচনা, গত মে মাসে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ানের সঙ্গে ওজিল দেখা করার পর। লন্ডনের এক অনুষ্ঠানে এরদোয়ানের সঙ্গে দেখা করার সময় তার সঙ্গে ছিলেন সতীর্থ ইলকে গুনদোগানও। দু’জনই তুরস্কের বংশোদ্ভূত জার্মান মিডফিল্ডার। সেদিক থেকে হয়তো এই বিষয়টিকে খুব একটা খারাপ মনে করেননি ওজিল।

তবে এটা ভালোভাবে নেয়নি জার্মানি এবং দেশের সমর্থকরা। মাঠে এজন্য অনেকবারই দুয়ো শুনতে হয়েছে এই মিডফিল্ডারকে। টেলিফোনে শুনতে হয়েছে হুমকিও।

এখানেই থামেনি, বিশ্বকাপে জার্মানির ব্যর্থতার জন্যও নাকি ওজিলকে দায়ী করা হয়েছে, বিদায়বেলায় এমনটাই জানিয়েছেন মুসলিম এই ফুটবলার।

sentbe-top