পান্তাভাত দেয়ার ‘অপরাধে’ বৃদ্ধা মাকে মারল ছেলে

india-newsএবার পান্তাভাত খেতে দেওয়ার ‘অপরাধে’ বৃদ্ধা মায়ের গায়ে হাত তোলার অভিযোগে এলো ছেলের ওপর। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে ভারতের অশোকনগর থানার কল্যাণগড়ে ষাটফুট এলাকায়। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা।

বুধবার একই থানার বিল্ডিংমোড় এলাকায় মাকে মিস্টি খাওয়ার অপরাধে বৃদ্ধ বাবার গায়ে হাত তুলেছিল কল্যাণগড়ের এক সরকারি কর্মচারী। পরম শ্রদ্ধেয় বাবাকে এমন মারধরের ভিডিও ভাইরাল হয়ে পড়লে বুধবার ছেলেকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় পুলিশ। পরে বাবার অনুরোধে জামিন পায় ছেলে প্রদীপ বিশ্বাস। ঠিক তার পর দিনই একইরকম ঘটনা ঘটল কল্যাণগড়ের ষাটফুট এলাকায়।

পুলিশ ও প্রতিবেশীদের সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় বাড়ি ফিরে শিবশঙ্কর ভাত খেতে চাইলে তাকে পান্তাভাত দেয়া হয়। তখনই ক্ষিপ্ত হয়ে মাকে চড়-ঘুষি মারে। এক সময় রড দিয়ে মারার চেষ্টা করে। এসময় চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে বৃদ্ধাকে রক্ষা করেন এবং পুলিশকে ফোন করেন। অভিযুক্তকে রাতেই গ্রেফতার করে পুলিশ। প্রহৃত মা লক্ষ্মী মিত্রকে অশোকনগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শিবশঙ্কর গাড়ি চালক। প্রায় দিনই মাতাল হয়ে বাড়ি ফিরে শিবশঙ্কর তার মা ও মেয়েদের ওপর নির্যাতন করে বলে অভিযোগ এসেছে।

এদিকে ছেলের হাতে প্রহৃত হওয়ার কথা স্বীকার করলেও বৃদ্ধা ছেলের নামে থানায় অভিযোগ করতে রাজি নন। ছেলেকে ক্ষমা করে দিয়ে নতুন করে সুযোগ দিতে চাইছেন মা।

শুক্রবার তিনি পুলিশকে বলেন, ‘ছেলে ছাড়া আমাদের তো আর কেউ দেখার নেই। ছেলেকে আর একটা সুযোগ দিতে চাই।’ তবে বৃদ্ধার এ অনুরোধ রাখেননি পুলিশ। পুলিশ স্বতঃপ্রণোদিতভাবে শিবশঙ্কর মিত্রের নামে মামলা দায়ের করেছে তারা।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিবশঙ্করের মেয়ে জানায়, ‘মা মারা যাওয়ার পর থেকে বাবার অত্যাচার আরও বেড়েছে। আমরা চাই, বাবা ভাল হয়ে যাক।’

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা