cosmetics-ad

বাঁশখালীতে ছেলেধরা সন্দেহে ৫ জনকে গণপিটুনি

bashkhali

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে ছেলেধরা সন্দেহে পৃথক দুটি ঘটনায় গণপিটুনিতে ৫ জন আহত হয়েছেন। সোমবার দুপুরে বাঁশখালী উপজেলার বাহারচড়া ইউনিয়নের বশিরউল্লাহ বাজার ও সাধনপুর ইউনিয়নের বানীগ্রাম এলাকায় এ ঘটনা দুটি ঘটে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, দুপুরে বাহারচড়া এলাকার বশিরউল্লাহ বাজার এলাকায় সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখে ৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে বাজারের লোকজন। এ সময় তাদের কথা সন্দেহজনক মনে হলে জড়ো হওয়া লোকজন পিটুনি দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে থানা হেফাজতে নিয়ে আসেন।

এ ঘটনায় আহতরা হলেন- পটিয়া উপজেলার বরনিয়া ইউনিয়নের শফিক আহমদের ছেলে মো. হৃদয় (১৮), একই এলাকার নবাব মিয়ার ছেলে মো. সোহাইল (২৫) ও বোয়ালখালী উপজেলার শাকপুরা ইউনিয়নের শাহাব মিয়ার ছেলে মো. জনি (২৮)।

এদিকে একই সময়ে, উপজেলার সাধনপুর ইউনিয়নের বানীগ্রামে ছেলেধরা সন্দেহে আরও দুইজনকে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয়রা। গণপিটুনির শিকার ব্যক্তিরা হলেন- চট্টগ্রাম নগরের চান্দগাঁও থানার বলিরহাট এলাকার নুরুল আজিমের ছেলে আব্দুর রহিম (৩৯) ও সাতকানিয়া কালিয়াইশ ইউনিয়নের তপন বিশ্বাসের ছেলে শান্ত বিশ্বাস (৩২)।

বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ রেজাউল করিম মজুমদার বলেন, উপজেলার বাহারচড়ায় ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে আহত ৩ জনকে পুলিশ উদ্ধার করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাভাবে তারা জানিয়েছেন, ছাগল ক্রয়ের জন্য তারা বাজারের দিকে যাচ্ছিল। অন্যদিকে সাধনপুরের বানীগ্রাম এলাকা থেকে সন্দেহজনক দুজনকে এলাকাবাসী গণপিটুনি দিয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে থানা হেফাজতে নিয়ে এসেছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অন্যদিকে, লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি ডেপুটি পাড়া এলাকায় গরুচোর সন্দেহে এক যুবককে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয়রা। গণপিটুনির শিকার যুবকের নাম আব্দুর রহিম (৩৫)। সে কক্সবাজার জেলার রামু বড় ডেপা এলাকার মো. হাসানের ছেলে। খবর পেয়ে পুলিশ ওই যুবককে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে।

সৌজন্যে- জাগো নিউজ