cosmetics-ad

এবার তারাবিহ ও ইতেকাফ স্থগিত করল মিসর

misore-namaj

প্রাণঘাতী বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে মিসরের মসজদিগুলোতে রমজানের তারাবিহ ও ইতেকাফ স্থগিত করেছে আওকাফ মন্ত্রণালয়। মিসরের ইতিহাসে তারাবিহ ও ইতেকাফ স্থগিতে এটিই প্রথম ঘটনা। মিসরের ধর্মীয় মন্ত্রণালয় দেশটির মসজিদে তারাবিহ ও ইতেকাফ আয়োজনে এ স্থগিতাদেশ জারি করে।

মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, তাবাবিহ নামাজের জন্য মসজিদে জামায়েতের প্রয়োজন হয়। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের এ সময়ে মানুষের নিরাপত্তা বিষয়টি চিন্তা করেই জনসমাগম বন্ধ করতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মসজিদে তারাবিহ অনুষ্ঠিত হলে এ ভাইরাস অন্যের মাঝে মারাত্মকভাবে সংক্রিমত হবে।

করোনাভাইাসের প্রাদুর্ভাব না কমলে মসজিদগুলোতে তারাবিহ নামাজের জামাআত ও ইতেকাফ অনুষ্ঠিত হবে না বলেও জানায় মন্ত্রণালয়। কায়রোর নীতি নির্ধারণী মহল জনস্বার্থে কোভিড-১৯ এর কারণে মসজিদে তারাবিহ ও ইতেকাফ স্থগিত করেছে। তারাবিহ নামাজ ও ইতেকাফ ছাড়াও মসজিদে ইফতারের আয়োজনেও থাকবে এ স্থগিতাদেশ।

তাছাড়া মিসরের আল-আজহার ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ইলেক্ট্রনিক ফতোয়া বোর্ড জানিয়েছে, ‘করোনোভাইরাস সংক্রমণের বিরুদ্ধে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসাবে যদি ডাক্তাররা দিনের বেলা করোনা সংক্রমিত কিংবা সংক্রমনের আশঙ্কায় থাকা রোজাদার ব্যক্তির মুখ ভিজিয়ে রাখার প্রয়োজনীয়তা মনে করেন, তবে রমজান মাসে তাদের জন্য রোজা ভাঙা ব্যাপারেও তারা মত দেন।

এদিকে সৌদি আরবের ইসলামিক মন্ত্রী ড. আব্দুল লতিফ আল-শেখ জানান, দেশটিতে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে সৌদিতেও বন্ধ থাকবে রমজানের ধর্মীয় ইবাদত তারাবিহ।

উল্লেখ্য, মিসরের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ২ হাজার ৬৫ জন। মারা গেছে ১৫৯ জন। আর বিশ্বব্যাপী করোনায় ১৮ লাখ ৬২ হাজার ৫৮৪ জন আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ১ লাখ ১৪ হাজার ৯৮২জন।

সূত্র : এ্যারাবিক.আরটি.কম, ইউএম৭ডটকম।