cosmetics-ad

অবশেষে চলচ্চিত্রে আসিফ

asif

বাংলাদেশের সংগীতাঙ্গনের যুবরাজ বলা হয় তাকে। সংগীতশিল্পী হিসেবে তার জনপ্রিয়তাও আকাশচুম্বী। রাজনীতির ময়দানে এবং সমাজসেবায়ও জুড়ি নেই তার।

সাম্প্রতিক সময়ে সত্যের ছুরি হাতে ক্রমাগত লিখে চলেছেন অন্যায় অবিচারের বিরুদ্ধে। বাস্তবের নায়কতো তিনিই! বুদ্ধিমান পাঠক ঠিকই ধরেছেন, বলছি কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবরের কথা।

বহুদিন ধরেই চলচ্চিত্রে কাজ করার প্রস্তাব পাচ্ছিলেন আসিফ। কিন্তু অভিনয় পারেন না এই অজুহাতে সবাইকে ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি। এমনকি একবার আসিফের কাছে প্রস্তাব এসেছিল ছবির নায়ক হওয়ার। যেনতেন কথা নয়! তার বিপরীতে নায়িকা থাকবেন আবার শাবনূর। ভাবা যায়? নির্মাতা শাহীন সুমনের শত চেষ্টা আর অনুরোধের ঢেকি গেলানোর পরও বড় পর্দায় নায়ক হিসেবে রাজি করা যায়নি আসিফকে। কিন্তু অবশেষে তিনি বড়পর্দায় আসছেন। এমনটাই জানালেন আসিফ নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক ফ্যানপেজের এক স্ট্যাটাসে।

আসিফ লিখেছেন, ‘একটা সিনেমা ক্রিকেটকে কেন্দ্র করে। ছবিটায় একটা গানও আমার আছে ক্রিকেট এবং ক্রিকেটারের প্রেমকে কেন্দ্র করে। আমি প্লে-ব্যাক আর্টিষ্ট, গাইতেই পারি। কিন্তু পরের ঘটনাটা আমার বিগত ইতিহাসের সাথে আর গেলোনা। কাছে মানুষদের অত্যাচারে রাজী হয়ে গেলাম। কেউ অনুগ্রহ করে ভাববেন না আমি অভিনেতা হতে যাচ্ছি,গল্পের প্রয়োজনে যেতে বাধ্য হচ্ছি।

ছবিটি ক্রিকেট কেন্দ্রিক। আমি আর আমার দীর্ঘ দিনের বন্ধু জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক, বর্তমানে নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন শুটিং করবো। সিনেমায় আমাদের ভূমিকা থাকবে ক্রিকেট বিশ্লেষক হিসেবে। তবে টেলিভিশনের পর্দায়, যাবে সিনেমায়। আসছে ঈদে মুক্তি প্রতিক্ষিত একটি ছবিতে ঘটনাটি ঘটতে যাচ্ছে, এর বেশি আর বলা যাচ্ছেনা প্রটোকল অনুযায়ী। সবাইকে ধন্যবাদ।’

আসিফ মুখে না বললেও আন্দাজ করা যাচ্ছে এই ছবিটির নাম পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী- ২। সাফিউদ্দিন সাফি পরিচালিত এই ছবির নায়ক শাকিব খান। আসছে ঈদে মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও ছবিটির কর্তৃপক্ষ তাদের সিদ্ধান্ত বদলে নিয়েছে। তাই আসিফের অভিনয় দেখার জন্য তার ভক্তদের আরো অপেক্ষা করতে হবে।