cosmetics-ad

আইসিসির বর্ষসেরা উদীয়মান মুস্তাফিজ

mustafeez

গত বছর জুনে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর থেকেই বল হাতে দারুণ সাফল্য পাচ্ছেন মুস্তাফিজুর রহমান। টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি—সব ঘরানার ক্রিকেটেই সফলতার স্বাক্ষর রেখেছেন তিনি। উদীয়মান ক্রিকেটার হিসেবে বেশ কিছু রেকর্ডও জমা পড়েছে তাঁর ঝুলিতে। এর স্বীকৃতিও পেলেন কাটার-মাস্টার। বল হাতে দারুণ সব সাফল্যের জন্য আইসিসির ২০১৬ সালের সেরা উদীয়মান ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।বৃহস্পতিবার আইসিসি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ ঘোষণা দিয়েছে। এই প্রথম বাংলাদেশের কোনো ক্রিকেটার আইসিসির বর্ষসেরার পুরস্কার পেয়েছেন মুস্তাফিজ।

গত বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে এ বছরের ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তিনটি ওয়ানডে খেলে ৮ উইকেট নেন বিশ্ব ক্রিকেটের এই নতুন বোলিং সেনসেশন। আর এ সময়ে ১০টি টি-টোয়েন্টি খেলে ১৯ উইকেট পান তিনি। মূলত এ সময়ের মধ্যে ভালো পারফর্ম করে এই পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হন তিনি।যদিও মুস্তাফিজ মোট ৯টি ওয়ানডে খেলে ২৬ উইকেট এবং ১৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ২২ উইকেট পান। হালের এই বোলিং বিস্ময় দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলে পান চারটি উইকেট।গত জুলাইতে সাসেক্সের হয়ে ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়েন্টি ব্লাস্ট ও রয়্যাল লন্ডন কাপে অংশ নিতে গিয়েই চোটে আক্রান্ত হন মুস্তাফিজ। এই চোট এতটাই গুরুতর ছিল যে তাঁকে অস্ত্রোপচার পর্যন্ত করাতে হয়েছিল।এর পর ঢাকায় ফিরে দীর্ঘদিন পুনর্বাসনে ছিলেন এই বাঁহাতি পেসার। এ কারণে ঘরের মাঠে আফগানিস্তান ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে খেলতে পারেননি। খেলতে পারেননি ঘরোয়া টি-টোয়েন্টির সবচেয়ে বড় আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগেও (বিপিএল)। তা না হলে আরো সাফল্য পেতেন তিনি।দীর্ঘদিন পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় থাকার পর নিউজিল্যান্ড সিরিজে দলে ফিরেছেন মুস্তাফিজ।ওয়ানডে সিরিজের আগে আজ বৃহস্পতিবার একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে বল হাতে যথেষ্টই ভালো করেছেন তিনি। সাত ওভার বল করে ৩৯ রান দিয়ে দুই উইকেট নিয়েছেন তিনি। দীর্ঘদিন পর মাঠে নেমেছেন, তার পরও অনেকটা স্বরূপে দেখা গেছে এই বাঁহাতি পেসারকে।