cosmetics-ad

যুদ্ধে জড়াচ্ছে জাপানও!

japan-army
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যৌথ সমারিক মহড়া শুরু করেছে জাপানের সেনারা।

যুক্তরাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত দ্বীপ গুয়ামে কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার প্রস্তুতি নেওয়ার হুমকি দিয়েছে উত্তর কোরিয়া। দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের অনুমোদন পেলে হুয়াসং-১২ নামের রকেট গুয়ামে গিয়ে আঘাত হানবে। আর ভৌগলিক কারণে জাপানের আকাশসীমা দিয়েই এই হামলা চালানোর পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে উত্তর কোরিয়া।

উত্তর কোরিয়ার এমন পরিকল্পনার পরে জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ইসুনোরি ওনেদেরা ঘোষণা দিয়েছেন, জাপান চাইলে উত্তর কোরিয়ার এই মিসাইল হামলায় প্রতিরক্ষায় সক্রিয় হতে পারে। কারণ এই ধরনের কাজ আমাদের দেশের জন্য হুমকি।

দেশটির সংবাদ মাধ্যমে কয়োটা এজেন্সির বরাত দিয়ে রয়টার্সের এক খবরে বলা হয়েছে, উত্তর কোরিয়া যদি যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটিতে হামলা চালায়, আর তা যদি আমাদের আকাশ সীমা দিয়ে হয় তবে আমরা তা প্রতিরোধ করবো।

তিনি বলেন, আমার ক্ষতি হচ্ছে দেখলে প্রতিরক্ষার সব চেষ্টাই করবো। আমরা মনে করি আমাদের সেই সক্ষমতা আছে।

উল্লেখ, এর আগে উত্তর কোরিয়ার ছোড়া বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র জাপানের জল সীমানায় পড়ে। তখন উত্তর কোরিয়াকে সতর্কও করে জাপান। ইতোমধ্যে জাপান উত্তর কোরিয়ার ছোড়া ক্ষেপনাস্ত্র প্রতিরোধে প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েত করেছে।

japan-defence
জাপানের ক্ষেপনাস্ত্র ধ্বংস করার সক্ষমতা

বৃহস্পতি বার ইসুনোরি ওনেদেরা বলেন, জরুরি মুহূর্তের জন্য আমরা প্রস্তুত আছি। তারা (উত্তর কোরিয়া) যদি আমাদের হিরোশিমা, শিমানি ও কোচির আকাশ পথকে হুমকির মুখে ফেলে তবে আমরা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেব।

তবে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে দ্যা গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, উত্তর কোরিয়ার ছোড়া ক্ষেপনাস্ত্র ধ্বংস করার সক্ষমতা জাপানের নেই।

এদিকে ফক্স নিউজের এক খবরে বলা হয়েছে, ‘উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপনাস্ত্র হামলা থেকে গুয়াম প্রতিরক্ষায় জাপান কাজ করবে’- দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর এমন ঘোষণার পরপরই যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যৌথ সমারিক মহড়া শুরু করেছে জাপানের সেনারা।

প্রায় সাড়ে তিন হাজারের বেশি মার্কিন ও জাপানি সেনা এই মহড়ায় অংশ নিচ্ছে। হোক্কাইডু দ্বীপে নর্থান ভাইপার-১৭ নামে এই মহড়া চলবে আগামী ২৮ আগষ্ট পর্যন্ত।

japan-kids
যুদ্ধাবস্থায় হামলা থেকে কীভাবে নিজেকে রক্ষা করতে হয় তার মহড়া দিচ্ছে জাপানের নাগরিকেরা

জাপান উত্তর কোরিয়া থেকে মাত্র ৬২০ কিলোমিটার পূর্ব দিকে অবস্থিত। এর আগেও পারমাণবিক হামলার শিকার হওয়া দেশটি গত কয়েকদিন ধরেই যুদ্ধাবস্থায় হামলা থেকে কীভাবে নিজেকে রক্ষা করতে হয় তার মহড়া দিচ্ছে জাপানের নাগরিকেরা।

গতকাল উত্তর কোরিয়ার তরফ থেকে বলা হয়েছে, তারা চলতি আগষ্ট মাসের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যেই ওই ঘাঁটিতে চারটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর হুমকি দিয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থার বাত দিয়ে বিবিসি বলছে, কৌশলগতভাবে যুক্তরাষ্ট্রের জন্য গুরুত্বপূর্ণ গুয়াম এলাকায় মাঝারি থেকে দূর পাল্লার রকেট নিক্ষেপ করার পরিকল্পনা করছে পিয়ংইয়ং।

খবরে বলা হয়েছে, দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের অনুমোদন পেলে জাপানের ওপর দিয়ে গিয়ে গুয়াম থেকে ১৭ মাইল দূরের সাগরের কাছাকাছি এলাকায় আঘাত হানবে হুয়াসং-১২ রকেট। বেশ কয়েকটি রকেট দিয়ে ওই এলাকায় হামলা চালানো হবে।